ক্যাটেগরিঃ প্রকৃতি-পরিবেশ

Save Nature get peace

রাস্তার ধারে শতবর্ষী গাছ। জন্ম থেকে তাদের দেখে আসছি। হঠাৎ দেখি রাস্তার ধারে কোনো গাছই নাই। কেনো কি হলো সেসব গাছের? কেটে নিয়েছে কারা জানি। এখন খাঁ খাঁ রৌদ্দুরে আর রাস্তার দিকে তাকানো যায়না।

আমাদের দিকে ফিরে তাকাই। আমরাই হয়তো দায়ী।

ভাবার সময় হয়েছে, আমরা নিজেরা কতোটা যান্ত্রিক হয়ে উঠেছি! আমরা কয়টা গাছ লাগিয়েছি! আমরা পরিবেশ ধ্বংস করেই নিজের পরিবেশবাদী কিনা।

আজ ৫ জুন বিশ্ব পরিবেশ দিবস। বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো আমরাও দিনটি পালন করছি।

১৯৭২ সালে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে গঠিত হয় UNEP (United Nations Environment Programme)|
বিশ্বব্যাপী পরিবেশ বিষয়ক সচেতনতা বৃদ্ধিকরণই এর মূল উদ্দেশ্য। কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী প্রত্যেক বৎসরের ৫ জুন তারিখে বিশ্ব পরিবেশ দিবস পালন করা হয়। বিভিন্ন আলোচনা, সভা, সেমিনার ও প্রচারণার মাধ্যমে গণমানুষকে পরিবেশ দূষণ, তার কারণ, প্রভাব ও আমাদের তথা মানুষের করণীয় বিভিন্ন বিষয়ে সচেতন করার চেষ্টা চালানো হয় বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে যথাযথ গুরুত্বের সঙ্গে দিবসটি পালন করা হয়।

দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য- ‘আপনার সেবায় প্রকৃতি ও বন’।

১.৬ বিলিয়ন মানুষ তাঁদের জীবনধারনের জন্য অরণ্যের উপর নির্ভরশীল। আবহাওয়ার পরিবর্তনের বিরুদ্ধে আমাদের লড়াইয়ে এই অরণ্য মুখ্য ভূমিকা পালন করে, বাতাসে অক্সিজেন ছাড়ে এবং কার্বন ডাইঅক্সাইড জমিয়ে রাখে ৷এই অমূল্য পরিবেশসংক্রান্ত, অর্থনৈতিক, সামাজিক ও স্বাস্থ্য সংক্রান্ত লাভ সত্ত্বেও আমরা আমাদের বেঁচে থাকার ও শ্বাস নেওয়ার জন্য অপরিহার্য এই অরণ্য ধ্বংস করে ফেলছি৷

সচেতন হবার সময় বুঝি চলেই এসেছে।