ক্যাটেগরিঃ পাঠাগার

আহা বেশ বেশ, কি সোন্দর কি সোন্দর
আহা বেশ খাসা হইছে নতুন বউ, এই শীতে বেশ বেশ!
লেপকাঁথা তলে জমে যাওয়া হাত-পা, সোয়ামীর আদর,সুহাগ
আর ভয় নেই লা ছুড়ি।তোর সোয়ামীর গতর শীতের কাঁথা!

ওলো, ঘরে তোর পুরুষ মানুষ; কত্তো তোর আদর সুহাগ
খিলখিলিয়ে হাসিস যে বড়ো! ও ছুড়ি,শীতের মধ্যে গোসল তোর
শীতের জ্বালা তো বড় জ্বালা, আরো জ্বালা তোর সোয়ামীর
জোড়াজুড়ি আছিস বেশ,শীতের কাঁথা ছাববাক্সে তুলা।

দেহের বাঁধনে বাঁধা প্রেম, কাঁথা-বালিশ স্বপ্ন
শীত শীত ভোর হয়, কুয়াশায় মগ্ন।
প্রকৃতি ও প্রেমের কুয়াশাঘন বাংলার ঘর
এভাবেই দেহে দেহে আপন-পর।