ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

নারায়নগঞ্জ এবার আওয়ামীলীগকে কঠিন শিক্ষাই দিতে যাচ্ছে যদিও ইতিহাস বলে আওয়ামীলীগ কখনও কিছু দেখে বা ঠকে শেখেনা। বর্তমানের আওয়ামীলীগে তবে কি গৃহযুদ্ধ বাধছে? বাধারই কথা! নির্বাচনে আইভির জয় নিশ্চয়ই আওয়ামীলীগের গৃহযুদ্ধের শুরু। বঞ্চিত নেতাকর্মীরা এবার চরম ক্ষমতাশালীদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াবেই। কারণ, শিক্ষা আইভি।

আওয়ামীলীগ দলীয়ভাবে শামীম ওসমানকে সমর্থন দিলেও নিশ্চয়ই দলের ভেতরেই কিছু নেতা এ সিদ্ধান্ত মেনে নিতে পারেননি। তারা নিশ্চয়ই আইভিকে চেয়েছেন। জলন্ত উদাহরণ সংসদসদস্য কবরী। তিনি আইভির হয়ে ভোট চেয়েছেন।

নারায়নগঞ্জ নির্বাচনে সবচেয়ে বড়ো বিষয় যেটি সেটি স্বতঃস্ফ’র্ত গণজোয়ার। মানুষ সচেতন। রাজনীতির ডামাডোলেও যোগ্যকেই ভোট দিয়েছে না.গঞ্জবাসী।

শামীম ওসমান যতোটাই না আত্মবিশ্বাসী ছিলেন তার চেয়ে বেশি তিনি পরনির্ভরশীলতার প্রমাণ দিয়েছেন। রাজনীতিতে ফিরে আসার যে চ্যালেঞ্জে তার পরাজয় ঘটছে তা থেকে তিনি কি আর ঘুরে দাঁড়াতে পারবেন? মনে হয় না। আইভি একটা পথ আর একটা বিপ্লব ঘটালেন। আওয়ামীলীগকে দেখিয়ে দিলেন ‘জনগনই সকল ক্ষমতার উর্ব্ধে’।

এতো ছিলো সামান্য সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন। সংসদ নির্বাচন নিয়ে আওয়ামী লীগের অবস্থাও শেষে শামীম ওসমানের মতো হয়ে না যায়! তবে, যদি এখনো শিক্ষা নেয় তবে.. মানুষ তাদের পাশে থাকবে আর না হলে আওয়ামীলীগের গৃহযুদ্ধ শুরু হবে… যেমন হলো…এখন আইভির মতো অনেকেই উঠে আসতে চাইবে…তা সে যেমন করেই হোক।

বিএনপি..হায়রে… শেষ মুহুর্তে পরাজয়ের শঙ্কায় মাঠ থেকে সরে দাঁড়ালো! এ নাটকটা না করলেও পারতো…তাদের ইমেজটা এখন কোথায়? সরকার বলবে… শামীম জেতেনি কিন্তু ফেয়ার নির্বাচন তো হলো!’ বিএনপি কি দায় দেবে? সবচেয়ে বড় কথা জনগন সচেতন..তারা জেগেই আছে… যে কেউ ভুল করলে সঠিক জবাব দিতে উৎফুল্ল হয়েই….

নতুন মেয়র ….আইভিকে স্বাগতম
শামীম ওসমানকে সুষ্ঠু জনকল্যাণমুলক রাজনীতিতে স্বাগতম।
আওয়ামীলীগের শিক্ষা হোক..আর বিএনপি বিদ্রোহের স্বপ্নই দেখুক না হয়…কারণ তাদেরও তো ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করতে হবে। আপনাদের কি মত?