ক্যাটেগরিঃ ধর্ম বিষয়ক

 

আমি একজন মুসলমান। আমার বাপ মুসলমান, দাদা মুসলমান, চৌদ্দগোষ্ঠী মুসলমান। এই পরিচয়ও যথেষ্ট না হয়, তাহলে আরেকটা পরিচয় আছে যাহা চিরন্তন সত্য, আমি কোরআন বিশ্বাস করি, হাদিস বিশ্বাস করি, আমি নবী রাসুলকে বিশ্বাস করি, আমি এক আল্লাহ বিশ্বাসী। আমি কোরআন পড়েছি, হাদিস পড়েছি। কিন্ত কোন আলেমকে বিশ্বাস করতে পারতেছি না। কেন জানি মনে হয়, উনারা ধোকাবাজি করতেছেন। সাধারণ মানুষকে ভুল বুঝানো হচ্ছে। প্রতারণা করা হচ্ছে ওদের সাথে।

আমি বহু আলেমের সাথে থেকেছি, অনেক উলামা মাশায়েখের সান্নিধ্যে গিয়াছি। কোথাও কোন সমাধান পাইনি। মুনাযিরে আজম, প্রখ্যাত মুফাসসিরে কোরআন, আল্লামা নুরুল ইসলাম ওলিপুরী উনার বক্তব্যে আল্লামা ছাহেব কিবলা আব্দুল লতিফ ফুলতলিকে বা উনার অনুসারীগণ কে কাফির ঘোষণা করেছেন। ফুলতলি মছলকের লোকেরা আবার ওদেরকে ওয়াহাবি, কাফির ইত্যাদি বলে গালি দেয়। সবাই আহলে সুন্নত ওয়াল জামায়াত দাবি করে।

ওরা তো সবাই আলেম, কোরআন পড়েছে, কোরআন মানে, এক আল্লাহ বিশ্বাসী, নবীকে মানে, নবীর হাদিসকে মানে, তবে কেন একে অন্যকে গালি দেয়? কেন ওরা এই বিদ্বেষ ছড়াচ্ছেন? নবীজি কি হাদিসে বলেন নাই, “এক মুসলমান অপর মুসলমানের ভাই”! ওরা কি পড়ে নাই এই হাদিস- “মুসলমানকে গালি দেয়া পাপের কাজ, হত্যা করা কুফুরী কাজ”। কেন ওরা এই হাদিসের প্রতি শ্রদ্ধা দেখায় না- “প্রকৃত মুসলিম সে নয়, যার হাত ও মুখ থেকে অপর মুসলিম নিরাপদ নয়”। আল্লাহ কি কোরআনে বলেন নাই- “তা’আালাও ইলা কালিমাতি ছাওয়াইম বাইনানা ওয়া বাইনা কুম”- সমাধানের পথে না এসে কেন ওরা সাধারণ মানুষকে নিয়ে ছিনিমিনি খেলছে? আ’ম মুসলিমদের সাথে শত্রুতা তৈরী করা কি ধর্মের নামে ধোকাবাজি নয়?

আরো কিছু লোক আছে, যারা ধর্মকে পুঁজি বানিয়ে ব্যবসা করছে। পীর পুজা, মাজার পুজা এসব করছে, মানুষের কাছ থেকে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। নিজে গাড়ি বাড়ি অট্টালিকা তৈরী করছে। জান্নাতে নিয়ে যাওয়ার আশ্বাস দিয়ে, ধোকাবাজি করছে। এই বাবারা কারা? ভাণ্ডারী, আটরশি, রাজার বাগি, দেওয়ান বাগিরা কেন এসব করছে? এই সমস্ত কাজ কারবারই তো আামাকে বিদ্রোহী করে তুলেছে। এখন আমি যদি বলি যে ওরা মুসলিম নয়, তাহলেই তো আমাকে শুরু হয়ে যাবে টানা-হেচড়া, মারার জন্য খোঁজাখুঁজি শুরু হয়ে যাবে। জামাতে ইসলামিরা ধর্মীয় রাজনীতির ব্যবসা করছে, একথা বলার সাথে সাথেই আমার মাথার দাম হয়ে যাবে কোটি ডলার! কিন্তু ওরা কি বুঝবে আমি কেন এসব বলি? বুঝবে না, কারণ বুঝার দরকারও নেই। ওদের স্বার্থে আঘাত পরেছে। এমনি এমনিতেই কি মুগল সম্রাট আকবর ‘দ্বীন-ই-ইলাহি’ নামে ধর্মে প্রবর্তন করেছিলেন? নিজেই আল্লাহর খলিফা দাবি করেছিলেন।

একই ধর্মের ভিতরে এত মত আর এত পথ হয় কি করে? সবাই ধান্ধাবাজিতে মত্ত। যার যার ক্ষমতা প্রকাশে লিপ্ত হয়ে পড়েছেন। তাই আমার সন্দেহ হয় ওদের মুসলমানি নিয়ে।