ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

গত কিছুদিন ধরে বাংলাদেশের পুলিশের নানবিধ গুন প্রকাশিত হওয়ার পরে আরো একটি গুন প্রকাশ হয়ে পড়লো। হয়তো ইতোমধ্যে আপনারা পত্রপত্রিকায় পড়ে ফেলেছেন যে বাংলাদেশের পুলিশ এখন আবহাওয়াবিদও বটে। (বরিশালের) পুলিশ বিভাগ সম্প্রতি ঘুর্নিঝড়ের আশঙ্কায় বরিশাল – ঢাকা লঞ্চ সার্ভিস বন্ধ করে দিয়েছে। অবশ্য অন্য রুটে লঞ্চ চলাচল করতে পারবে। এইযে এতো নির্ভুলভাবে শুধু বরিশাল-ঢাকা নৌপথে ঘুর্নিঝড়টি পুলিশ বিভাগ আবিষ্কার করলো, এতে নিশ্চয় হাজারো প্রান বাঁচানো যাবে। এজন্য বরিশালের পুলিশ বিভাগকে পুরষ্কৃত করা উচিৎ।

তবে একটি অতি সামান্য সমস্যা দেখা যাচ্ছে। ঘুর্নিঝড় প্রভৃতি প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও আবহাওয়ার গতিপ্রকৃতি নিয়ে বলার দায়িত্বপ্রাপ্ত “বরিশাল আবহাওয়া কার্যালয়ের জ্যেষ্ঠ পর্যবেক্ষক প্রণব কুমার রায় রোববার বিকেলে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “আজকে আবহাওয়া স্বাভাবিক আছে। কোনো সতর্ক সংকেত নেই।” “বরিশাল নৌ বন্দরের সহকারী নৌকর্মকর্তা বশির আলী খান বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “আমাদের কোনো নির্দেশনা নেই। পুলিশ লঞ্চ চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে।” অবশ্য এটিকে সমস্যা মনে করলেই সমস্যা। নাহলে সব ঠিক আছে। আবহাওয়া বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্তরা তাঁদের প্রশিক্ষন, অভিজ্ঞতা ও শিক্ষা দিয়ে যা করতে পারেন নি, সদাতৎপর পুলিশ বিভাগ সেই দায়িত্বটি কী সুচারুভাবে পালন করলো!! (সুত্র: বিডিনিউজ২৪.কম, ১০ই জুন, ২০১২)

এদিকে ঢাকাতে গনতান্ত্রিক সরকারের আইন কর্মকর্তারা লুটেরাদের মাজাভাঙ্গা সংঘ, প্রকাশ বিএনপি, ও তাদের ঘাড়ে বসে থাকা খুনী তথাকথিত জামাতের জামিন পাওয়া নেতাদের বিরুদ্ধে প্রডাকশন ওয়ারেন্টের আবেদন করেছেন। ফলে তারা ১৪ই জুন পর্যন্ত তাদের বিরুদ্ধে করা প্রডাকশন ওয়ারেন্টের আবেদনের শুনানী না হওয়া পর্যন্ত হাই সিকিউরিটি লালদালানের ভাত খেতে থাকবেন। যারা এই সরকারের সমালোচনা করেন বা সরকারকে অগনতান্ত্রিক বলে নিছক বেহুদা সমালোচনা করেন (এবং অতি অবশ্যই শুধু যুদ্ধাপরাধীদের বিচারকে বাঁধাগ্রস্থ করার জন্য) তারা যতোই দাবী করুন যে ১১ই জুনের উপরোক্ত সংঘের একটি সমাবেশে সংঘের নেতাদের উপস্থিত থাকাকে বাঁধাগ্রস্থ করার জন্যই গনতান্ত্রিক সরকারের আইন কর্মকর্তারা এরূপ একটি আইনী পদক্ষেপ নিয়েছেন। কে শুনে ওদের কথা?
দেশ কি ভালো চলছেনা?