ক্যাটেগরিঃ নাগরিক আলাপ

একদিনে রাজধানী শহরে বাস ড্রাইভারের দ্বারা দুই দুই জন সাংবাদিককে জীবন দিতে হল | বাস ড্রাইভারদের ক্ষমতা কি প্রধানমন্ত্রীর চেয়েও বেশি ? বাস ড্রাইভারদের নেতা মন্ত্রী শাজাহানের ক্ষমতাও কি প্রধান মন্ত্রীর চেয়ে বেশি? যদি বেশি হয় জনগণ কোন কথা বলবে না| যদি না হয়, বাস ড্রাইভারদের ধরে কঠোর থেকে কঠোর সাজা দেওয়া হোক| ওরা ধর্মঘট করবে? করুক , আমরা প্রয়োজনে একমাস বাসে উঠব না| মানুষ একমাস, দুই মাস, প্রয়োজনে যতদিন হন্তারকদের পেট পিঠ লেগে না যাবে ততদিন মানুষ হেঁটে, রিক্সায় কর্মস্থলে যাবে| রাস্তায় বাস ড্রাইভাররা সন্ত্রাস করবে ,জনগণ ওদের প্রতিহত করবে | তবুও একটা শৃংখলা আসতেই হবে | জোর করে হলেও ওদের মনুষত্য শিখাতে হবে| আর দেরি নয় | ঢাকার রাস্তায় পঁচানব্বই শতাংশ বাস ড্রাইভার এর, বড় বাস, মিনিবাস চলানোর শারীরিক ,মানসিক কোন যোগ্যতাই নেই | রাস্তায় ওরা মানুষকে জন্তু জানোয়ার মনে করে | বাসের সামনে মানুষ .রিক্সা গাড়ি যাই থাকুক না কেন এই বদমায়েশ গুলি বিন্দু মাত্র গতি কমায় না, ওদের ভাব হচ্ছে পার হতে পারলে হও নতুবা মর , আমাদের টিকিটাও ছুঁতে পারেনা কেউ | যারা ছুঁবে তাদের বউ বাচ্চাদের লজ্জা নিবারণ তো আমাদের মাসোহারা থেকেই হয়ে থাকে ,কোন নৈতিক বলে আমাদের মত বাস ড্রাইভারদের ওরা ছুঁবে ?
জনগণকেই এগিয়ে আসতে হবে | আগামীকাল থেকে আমরা বাসে উঠব না , আমরা কি পারব এই কাজটি করতে? সাংবাদিক ভাইয়েরা এবার বাস বর্জনের ক্যাম্পেইন আপনারা শুরু করুন, কাল থেকেই |