ক্যাটেগরিঃ নাগরিক আলাপ

 

স্বাধীনতার পরবর্তী প্রজন্ম হয়ে আমরা পেয়েছি একটি রক্তাক্ত বাংলাদেশ ।ইতিহাস নয় ,ঐতিহ্য নয় এক সুন্দর নিয়মতান্ত্রিক সুন্দর নিয়মে বাংলাদেশকে সাজিয়েছে তারা ।তারা কে ? আমরা যাদের নেতা হিসাবে মানি ,যাদের নেতা বানানো হয়েছে । স্বাধীনতার পরবর্তী বাংলাদেশকে তারা কি দিয়েছে । আমরা নতুন প্রজন্ম যেদিকে চোখ রাখি ,আমাদের চোখের সামনে হিংসাত্বক দৃশ্য গুলো ফুটে উঠে ।এই হিংসাত্বক রাজনীতি কারা সৃষ্টি করেছে অথবা কারা এই প্রতিহিংসার জন্ম দিচ্ছে । সত্যিই আমাদের পরিবর্তন নয় জাতিকে স্থির রাখার জন্য আমরা প্রতিটি মানুষই দায়ী ।অবশ্য আমি নিজেও । বাসে উঠে ভাড়া না দেওয়া ,রাস্তায় সুন্দরী মেয়ে দেখে ইভটিজিং করা ,বন্ধুরা একসাথে মিলে রাজনীতিবিদদের গালি দেওয়া ইত্যাদি ইত্যাদি । আজও আমি নিজেকে পরিবর্তন কোন সুযোগ পেলাম না । নিজের মনে পরিবর্তনের হাওয়া সবসময় বহিয়া যায় । রক্ত দেখে রক্তাক্ত বাংলাদেশকে দেখে নিজেকে পরিবর্তন করার স্বাদ মুছে যায় । নিজেকে পরিবর্তন দুরের কথা আরও হিংস্র করার চেষ্টা করি । তো আজ থেকে এক বড় সিদ্বান্ত নিবো !রক্তাক্ত বাংলাদেশের যতই রক্ত দেখি নিজের রক্ত কখনো দূষিত হতে দিব না।

যেহেতু রক্তাক্ত বাংলাদেশের পরিবর্তনের স্বপ্ন দেখি সেহেতু কলুষিত মানুষের রক্ত নয় খাটি রক্তে সাজাবো বাংলাদেশকে । আজ থেকে নয় । বাঙ্গালী হওয়ার পরে, যখন নিজে প্রতিষ্ঠিত হব অন্যায় ভাবে কারো সম্পদের উপর জোর-জুলুম করব না ,নারীর জন্য ক্ষতিকারক এমন কোন অশ্লীল আচরণ কিংবা মন্তব্য করব না (পুরুষ),পুরুষের জন্য ক্ষতিকারক বিদ্বেষী কোন পোশাক কিংবা বক্তব্য করা যাবেনা (নারী)। আত্বসম্মানের যথাযথ মুল্যায়ন করতে হবে । ক্ষতিকারক রাজনীতি দলকে পরিহার করতে হবে , এবং তাদের সমন্ধে মানুষকে সচেতন করতে হবে । এখন থেকে । দেশকে পরিবর্তনের শপথ নিতে হবে ,উপদেশ পরের জন্য না দিয়ে নিজের জন্য প্রয়োগ করতে হবে । টাকার জন্য নিজের আত্বসম্মানকে কুকুরের মত বিলিয়ে দেওয়া যাবে না ।বন্ধু, প্রতিবেশি অন্যন্য যারা আছেন তাদেরকে ভালবাসলে প্রান দিয়ে ভালবাসতে হবে ।

রক্তাক্ত বাংলাদেশকে সজাতে পারি আমরাই । শের ই বাংলা এ কে ফজলুল হক ,মাওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানী ,তাজউদ্দিন আহমেদ , বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান ,জিয়াউর রহমান বাঙ্গালী জাতিকে সাজাতে চেয়েছিলেন সোনার বাংলা হিসাবে ।যেখানে কোন অভাব থাকবে না ,থাকবে না কোন দারিদ্র। কিন্তু আজ আমাদের ক্ষুধা অনেক তীব্র । তীব্র ক্ষুধা নিয়ে কোন জাতি উন্নতি লাভ করতে পারেনা ।যে দেশের উন্নয়ন করবে ,দেশকে নতুন ভাবে সাজাবে তার কোন ক্ষুধা থাকবে না ,তিনি থাকবেন সবসময় ক্ষুদা মেটানোর সহায়ক । দেশের একটি উন্নয়ন হলে তার ক্ষুধা নিবারন হবে ।আমরা এরকম রাজনীতিবিদ চাই । যিনি দেশকে নয় ,দেশের মানুষের হৃদয়কে হৃদয়ঙ্গম করবেন ।শরীরের প্রতি ফোঁটা রক্ত যেন হৃদয় দিয়ে প্রার্থনা করে দেশের ঐ খাঁটি মানুষটির জন্য যিনি দেশকে ভালবেসে মানুষের কল্যাণে কাজ করেছেন ।যেন প্রতিটি হৃদয় থেকে উচ্চারিত হয় গনতন্ত্র মানে রক্ত নয় ,গণতন্ত্র মানে অশ্লীলতা নয় ,গণতন্ত্র হল শান্তি ,শান্তি শুধুই শান্তি ।