ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

 

ফজলুল হক আমিনী– কট্টর ধর্মপতি– ব্যক্তি স্বাধীনতা বিদ্বেষী, জাতিকে যিনি বাঁধতে চান ধর্মের শিকলে। যিনি জানেন না চিন্তা কী; যিনি মানেন না বুদ্ধির মুক্তি; যার বিশ্বাস নেই সাম্যে– তিনি আজ বিভোর হয়ে আছেন ম্যান্ডেলা-সুকি হবার স্বপ্নে।

সরকার তাকে চট্টগ্রাম যেতে দেয়নি, তার কর্মী বাহিনীর সাথে একত্রিত হয়ে বদ পরিকল্পনা করতে দেয়নি, তাই তাকে থেকে যেতে হয়েছে রাজধানীর বাড়িতে। আর এটুকুতেই তিনি বুঝে ফেলেছেন– তিনি মহামতি ম্যান্ডেলা হয়ে যাচ্ছেন, তিনি গণতন্ত্রের মানসপুত্র হয়ে যাচ্ছেন।

তার মত লোকেরা ধর্মকে যেমন হাওয়া মিঠাই জ্ঞান করেন– এই বুঝি ধর্ম গেল, তেমনি ম্যান্ডেলা-সুকিকেও হাওয়া মিঠাই মনে করছেন। এক বেলা ঘরে আটকে আছি– ম্যান্ডেলা কিংবা সুকি হতে দেরি নেই! ভাগ্যিস উনি পুত্রকে ফিরে পাবার পর দিনটিকে ‘পুত্র প্রত্যাবর্তন দিবস’ হিসেবে ঘোষণা করেননি।

প্রত্যাশা করি, আমিনীর এমন ইচ্ছা প্রকাশের খবর যেন ম্যান্ডেলা কিংবা সুকিকে শুনতে না হয়। তাহলে এর চেয়ে লজ্জার আর কিছু থাকবেনা। এ লজ্জা ম্যান্ডেলা বা সুকির নয়– এ লজ্জা আমাদেরই। কারণ আমিনী যে আমাদের দেশেরই একজন– একথা তো আর অস্বীকার করা যাবেনা।