ক্যাটেগরিঃ রাজনীতি

খেলা জমতে শুরু করেছে। ইটের পর পাটকেল মারা শুরু হয়েছে। আপাতত রিজভী গ্রেফতার হয়েছেন এবং আশা করছি রাতে আরো গ্রেফতারের ঘটনা দেখতে পারবো। নিখোঁজ ইলিয়াস আলী ইস্যুতে বিএনপির গত পাঁচটি হরতালের প্রতিদান এগুলো। প্রতিদান তো থাকবেই, রাজনীতি এত সোজা না।

ইলিয়াস ইস্যুতে নতুন করে কিছু লেখার নেই তাও আবার আমাদের মত নাদানদের। যা বলার তা বলা হয়ে গেছে, যা বুঝার তা বুঝা হয়ে গেছে। আমরা কারো পক্ষের নই, কারো বিপক্ষেও নই। আমারা ঘটনার দ্বারা নিয়ন্ত্রিত। যা ঘটছে তা বিবেচনা করেই আমরা সাধারণ ব্লগাররা লেখি। ইলিয়াস আলীকে কেন্দ্র করে যে ঘটনাটা ঘটে গেল তার আমরা তার বিপক্ষে। এই ঘটনায় সরকার প্রতিপক্ষ। তাই আমাদের কচিকণ্ঠ অনেকটা সরকারের বিপক্ষে।

ইলিয়াস আলীকে ফিরে পাবার জন্য বিএনপি হরতাল করেছে। হরতাল ছাড়া বিএনপির আর কিছু করার ছিল বলে আমার মনে হয় না। কারণ এটা অনেকাংশেই দলটির বাঁচা-মরার ব্যাপার। আজ ইলিয়াস গেছে, কাল আরেকজন যাবে। যেতে যেতে সব ফুরিয়ে যাবে। তাই তো দলটির এতো উৎকণ্ঠা। উৎকণ্ঠা অস্থিরতার জন্ম দেয়। আমরা সেই অস্থিরতার শিকার।

ককটেল-বোমা ফাটানো মেনে নেবার মত কিংবা সমর্থন করার মত কোন বিষয় নয়। কিন্তু গত কয়েকদিনের হরতালে এই জিনিসগুলো ফেটেছে ব্যাপকভাবে। ফাটতে ফাটতে পৌঁছে গেছে খোদ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর অফিসে। সেই ফাটাতে মামলা হয়েছে। তবে এই ফাটাফাটি নিয়ে শোনা যাচ্ছে ভিন্ন কথা। কে ফাটালো? বিরোধী দল নাকি বিরোধী দলের বিরোধী দল। প্রশ্নটা উঠতো না, উঠেছে এই ফাটাফাটির প্রতিক্রিয়া দেখে। সাথে সাথে মামলা, সাথে সাথে পুলিশী হামলা। দেশের আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় সরকার যে খুবই যত্নশীল তা এই মামলা ও পুলিশের হামলা দেখেই অনুমান করা যায়। কিন্তু আফসোস, একটা লোককে খুঁজে বের করার জন্য দেশে এতদিন ধরে হৈ চৈ চলছে অথচ সরকারের যত্নশীলতার কোন নমুনা এ ক্ষেত্রে পাওয়া যায়নি।

সরকারের প্রাণকেন্দ্রে বোমা ফাটানো, তা সেটা যতই ছোট হোক না কেন, বড্ড অন্যায় কাজ। এটা সন্ত্রাসীপনা। তাই তৎপর না হয়ে সরকারের কোন উপায় নেই। এটা সরকারের অস্তিত্বের বিষয়। কারণ এই ছোট বোমাটা এক সময় বড় বোমা হয়েও ফাটতে পারে। তখন আম-ছালা সবই যাবে। কিন্তু তারপরও স্মরণে রাখতে হবে, ইলিয়াস আলীর মত উদীয়মান রাজনীতিবিদের হারিয়ে যাওয়াও কিন্তু ছেলে খেলা নয়। ইলিয়াস আলী ছোট হতে পারে কিন্তু আজকের এই ছোট ইলিয়াসও কিন্তু ডেকে আনতে পারে বড় ইলিয়াসের অন্তর্ধানকে। যেটা আমাদের কারোরই কাম্য নয়।

হে সরকার, ইলিয়াস আলীকে খুঁজে বের করা কি এতটাই কঠিন! ইলিয়াসকে খুঁজুন। সহজকে কঠিন করে তুলবেন না। রাজনীতির মাঠ আর দাবা’র পাঠ- দুটোই কিন্তু এক। আজ একপক্ষের চাল তো কাল আরেক পক্ষের। শেষ চালটা যে কে দেয় এখন সেটাই দেখার বিষয়। আমরা জনগণ দেখার অপেক্ষায় আছি।