ক্যাটেগরিঃ প্রশাসনিক

আমাদের দেশে প্রকৃতির দান গ্যাস সম্পদের অপব্যবহার নিয়ে কারো কোন মাথা ব্যথা নেই। অনবায়ণ যোগ্য এই সম্পদের সঠিক ব্যবহার আমরা কেউ করিনা। বিশেষ করে বাসাবাড়িতে যে গ্যাস সংযোগ রয়েছে সেখানে ব্যাপক ভাবে গ্যাস অপচয় করা হয়। খাবার রান্নার জন্য একজন গৃহিণী যতটুকু গ্যাস খরচ করেন তার দ্বিগুণ পরিমান খরচ করেন ওয়াসার দূষিত পানি ফুটিয়ে বিশুদ্ধ করতে। বেঁচে থাকতে বিশুদ্ধ পানির বিকল্প নেই। কিন্তু আমরা সেই বিশুদ্ধ পানির জন্য গ্যাসের চুলা জ্বালাতে বাধ্য হচ্ছি। গ্যাসের চুলা না জ্বালিয়ে বিশুদ্ধ পানি কয়েকটি উপায়ে সংগ্রহ করা সম্ভব।

ওয়াসা যে গভীর নলকূপ থেকে পানি উত্তোলন করে পাইপ লাইনের মাধ্যমে গ্রাহকের কাছে সরবরাহ করে সেই পাইপ লাইনে যদি বাইরের দূষিত পানি প্রবেশ না করতে পারে তবে ও পাইপ লাইনের পানি বিশুদ্ধ খাবার পানি হিসেবে পান করা সম্ভব তখন গ্যাস খরচ করে পানি ফুটানোর প্রয়োজন হবে না। এক্ষেত্রে ওয়াসাকেই ব্যবস্থা গ্রহন করতে হবে মান সম্মত পাইপ লাইনের মাধ্যমে বিশুদ্ধ পানি সরবরাহ করার জন্য। আধুনিক বিশ্বে এর বাইরে আরো একটি সহজ ও সুন্দর পদ্ধতি রয়েছে পানি না ফুটিয়ে বিশুদ্ধ করার জন্য আর তা হলো ফিল্টার পদ্ধতি। বাজারে এখন পানি বিশুদ্ধ করার জন্য উন্নত মানের নির্ভরযোগ্য ফিল্টার পাওয়া যায়। অতি মূল্যবান গ্যাস সম্পদের ব্যবহার/ অপব্যবহার কমাতে প্রত্যেক নাগরিকের পানি বিশুদ্ধ করার ফিল্টার পদ্ধতিকে কাজে লাগানো উচিত। গ্যাসের চুলায় পানি ফুটিয়ে গ্যাস অপচয়ের পাশাপাশি আরো নির্মম ভাবে গ্যাসের অপব্যবহার লক্ষ্যণীয় যে অনেকেই গ্যাসের চুলায় কাপড় শুকায় কেউ বা শীতকালে গ্যাসের চুলা জ্বালিয়ে নিজেকে উঞ্চ করে আবার অনেকই বার বার চুলা জ্বালানোর ভয়ে সব সময়ই চুলা জ্বালিয়ে রাখে যা কোন অবস্থাতেই কাম্য নয়। আমরা গ্যাসের সঠিক ব্যবহার না করলে আগে ভাগেই এই সম্পদ শেষ হয়ে যাবে। আসুন আমরা এ ব্যাপারে সজাগ হয়।