ক্যাটেগরিঃ bdnews24

 

ঢাকা, মার্চ ১৯ (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)Ñজাপানে খাবারে তেজস্ক্রিয়া ধরা পড়েছে। ১১ মার্চ ভূমিকম্পে ক্ষতিগ্রস্ত ফুকুশিমা পরমাণু বিদ্যুৎ কেন্দ্র থেকে ছড়িয়ে পড়ার পর খাদ্যপণ্যে তেজস্ক্রিয়া ধরা পড়ার এটাই প্রথম ঘটনা।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, ওই পরমাণু বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ৩০ কিলোমিটার দূরের একটি ডেইরি ফার্মে দুধে এবং পার্শ্ববর্তী এলাকার একটি বাগানের সব্জিতে তেজস্ক্রিয়া সহনীয় মাত্রা ছাড়িয়েছে। জাপানের মন্ত্রিপরিষদের মুখ্যসচিব ইউকিও এদানো শনিবার এক সাংবাদিক সম্মেলনে একথা জানান।

তবে ওই সব খাদ্যপণ্যে দেখা দেওয়া তেজস্ক্রিয়া এখনো মানুষের স্বাস্থ্য ঝুঁকির পর্যায়ে পৌঁছেনি বলে জানান এদানো।

ভূমিকম্পে ফুকুশিমা বিদ্যুৎকেন্দ্রের পরমাণু চুল্লির শীতলীকরণপ্রকোষ্ঠে পানি দেওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় বিদ্যুৎ ব্যবস্থা বিপর্যস্ত হয়। এতে তাপ ও চাপ বেড়ে তিনটি পরমাণু চুল্লিতে শনিবার থেকে একের পর এক বিস্ফোরণ ঘটে। একটি চুল্লিতে আগুন লাগে।

বিস্ফোরিত চুল্লি থেকে তেজস্ক্রিয়া নির্গত হয়। চূড়ান্ত পরমাণু বিপর্যয় এড়াতে বিস্ফোরণের পর থেকে আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে কর্তৃপক্ষ।

শনিবার পরমাণু কেন্দ্রের দুই নম্বর চুল্লিতে বিদ্যুৎ সংযোগ স্থাপন করা সম্ভব হয়েছে। রোববার তারা এক, দুই, তিন ও চার নম্বর চুল্লিতে বিদ্যুৎ সরবরাহের চেষ্টা চালানো হবে।

টোকিও ইলেকট্রিক পাওয়ার কোম্পানির এক বিবৃতিতে বলা হয়, বাইরের বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইনের সঙ্গে রিসিভিং পয়েন্টের সংযোগ পুনঃস্থাপন করা সম্ভব হয়েছ। এর ফলে বিদ্যুৎ সরবরাহ চালু করা যেতে পারে।

কর্মকর্তারা জানান, সংযোগ স্থাপনের ফলে প্রথমে ফুকুশিমার দুই নম্বর চুল্লিতে বিদ্যুৎ সরবরাহের চেষ্টা করা হবে। এরপর তারা পানির পাম্পগুলো সচল আছে কিনা তা পরীক্ষা করা হবে।

দেশটির পরমাণু নিরাপত্তা সংস্থা জানিয়েছে, ফুকুশিমা বিদ্যুৎকেন্দ্র এলাকার ২০ কিলোমিটারের মধ্যে অবস্থানরত ৩০০ জনের মতো প্রকৌশলী কেন্দ্রের ছয় নম্বর চুল্লিতে থাকা একটি সচল ডিজেল পাম্প সনাক্ত করেছেন। এই পাম্পটি কাজে লাগিয়ে পাঁচ নম্বর চুল্লির পাম্প সচল করার চেষ্টা করছেন।

যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক ফোকাল পয়েন্ট কনসাল্টিং গ্র”পের পরমাণু বিদ্যুৎ বিশেষজ্ঞ এরিক মোর বলেন, প্রকৌশলীরা চুল্লির শীতলিকরণ যন্ত্রগুলো সচল করতে সক্ষম হলে তা তেজস্ক্রিয়া ছড়ানো রোধে একটি উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি বলেই বিবেচিত হবে।

তবে তারা ব্যর্থ হলে একটি পথই খোলা থাকবে আর তা হলো- বালি ও কংক্রিট দিয়ে চুল্লিকে চাপা দেওয়া। রাশিয়ার চেরানোবিলে দুর্ঘটনার পরও একই পদ্ধতি অনুসরণ করা হয়েছিলো, যোগ করেন তিনি।

এদিকে, আন্তর্জাতিক পরমাণু শক্তি সংস্থা (আইএইএ) জানিয়েছে, পরমাণু কেন্দ্র এলাকা থেকে সরিয়ে নেওয়া মানুষের দেহে আয়োডিন দেওয়ার সুপারিশ অনুমোদন করেছে জাপান কর্তৃপক্ষ।

গত ১৬ মার্চ সংস্থাটি জাপানের পরমাণু নিরাপত্তা কমিশনের কাছে মানবদেহে তেজস্ক্রিয়ার কারণে ক্যান্সার প্রতিরোধে আয়োডিন দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছিলো।

জাপানে ১১ মার্চের ৮ দশমিক ৯ মাত্রার শক্তিশালী ভূমিকম্প ও তার প্রভাবে সৃষ্ট সুনামিতে নিহতের সংখ্যা সাত হাজারে পৌঁছেছে বলে নিশ্চিত করা হয়েছে। এছাড়া এখনো ১০ হাজার ৭০০ মানুষ নিখোঁজ রয়েছে বলে কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম/এএইচ/পিডি/১৯৪৫ ঘ.