ক্যাটেগরিঃ bdnews24

ঢাকা, অগাস্ট ০৮ (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)- পররাষ্ট্রমন্ত্রী দীপু মনি বলেছেন, ভারতকে বাংলাদেশের ওপর দিয়ে ট্রানজিট সুবিধা দেওয়ার ক্ষেত্রে তিস্তার পানিবণ্টন চুক্তি কোনোভাবেই ‘শর্ত’ নয়। তবে তিস্তা চুক্তির বিষয়টিও বাংলাদেশের জন্য খুবই জরুরি।

স¤প্রতি ভারতের এনডিটিভিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, গতবছর সেপ্টেম্বরে ভারতীয় প্রধানমন্ত্রীর ঢাকা সফরের সময় তিস্তা চুক্তি না হওয়ায় বাংলাদেশের মানুষ হতাশ হয়েছে।

“আমরা চাই, বিষয়টি দ্রুত হয়ে যাক। আমরা অপেক্ষায় আছি। আর আমরা চাই, দেরি না করে তাড়াতাড়িই এটা হোক।”

বাংলাদেশের ওপর দিয়ে ভারতকে ট্রানজিট সুবিধা দেওয়া প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের জবাবে দীপু মনি বলেন, দুপক্ষই এ ব্যাপারে কাজ করছে। সড়ক, নৌ ও রেল ট্রানজিটের বিষয়গুলো জড়িত থাকায় এটি বিশ্বের অন্যান্য দেশের উদাহরণগুলো মিলিয়ে দেখে অবকাঠামো ও আইনগত বিষয়গুলো ঠিক করা হচ্ছে। এ জন্যই এ কাজে কিছুটা সময় লাগছে।

তিস্তা চুক্তি না হওয়ার কারণে ট্রানজিট আটকে আছে কি না- এনডিটিভির এমন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ট্রানজিটের বিষয়টি কোথাও কোনো কারণে আটকে নেই। নিজস্ব গতিতেই এর কাজ চলছে।

“আমি মনে করি না যে এটা (ট্রানজিট) তিস্তার ওপর নির্ভর করছে। তবে তিস্তা চুক্তি হলে অবশ্যই তা সহায়ক হবে।”

গতবছর ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংয়ের সফরের সময় তিস্তা চুক্তি হওয়ার কথা থাকলেও পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আপত্তিতে একেবারে শেষ মুহূর্তে তা আটকে যায়। মনমোহন সিং বিষয়টি নিয়ে গণমাধ্যমের কাছে দুঃখও প্রকাশ করেন।

দীপু মনি এনডিটিভিকে বলেন, গত বছর নভেম্বরে ব্যাঙ্গালুরুতে আইওআরসি’র বৈঠক শেষে ফেরার পথে তিনি কলকাতায় মমতার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। সে সময় তদের মধ্যে তিস্তা নিয়েও আলোচনা হয়েছে।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম/এএইচ/জেকে/১২৩০ ঘ.