ক্যাটেগরিঃ bdnews24

ঢাকা, সেপ্টেম্বর ০৯ (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)- পুরনো পদ্ধতিতে পরীক্ষা নিয়েই এবার মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে বলে হাই কোর্টকে জানিয়েছে সরকার।

ভর্তি পদ্ধতি পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত চ্যালেঞ্জ করে এক আইনজীবীর করা রিট আবেদনের শুনানিতে রোববার বিচারপতি শেখ হাসান আরিফের বেঞ্চকে সরকারের এই সিদ্ধান্তের কথা জানান ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোতাহার হোসেন।

গত ২৭ অগাস্ট ইউনুস আলী আকন্দ নামের এক আইনজীবীর দায়ের করা ওই রিট আবেদনে বিভক্ত আদেশ দেয় হাই কোর্টের একটি বেঞ্চ।

তবে একই বিষয়ে দায়ের করা আরেকটি রিট আবেদনে একটি রুল জারি করে হাই কোর্টের একই বেঞ্চ। জিপিএর ভিত্তিতে ভর্তি কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না- তা জানতে চাওয়া হয় ওই রুলে।

বিভক্ত আদেশের প্রেক্ষিতে প্রধান বিচারপতি আবেদনটি নিস্পত্তির জন্য বিচারপতি শেখ হাসান আরিফের বেঞ্চে পাঠান।

রোববার তৃতীয় বেঞ্চে এ বিষয়ে শুনানি শুরু হলে রাষ্ট্রপক্ষে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোতাহার হোসেন আদালতকে বলেন, “সরকার এ বছর ভর্তি পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তবে আগামী বছর থেকে জিপিএ এর ভিত্তিতে ভর্তি করা হবে।”

বাদি ইউনুস আলী আকন্দ এ দিন আদালতে হাজির না থাকায় সোমবার আবার শুনানি হবে।

আদালত রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীকে বলেন, “আপনারা যদি এ বছর ভর্তি পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন, তাহলেতো আদালতের রুল অকার্যকর হয়ে যায়। সোমবার এ বিষয়টি এফিডেবিট করে আদালতে উপস্থাপন করবেন।”

গত ১২ অগাস্ট এক সভার পর স্বাস্থ্যমন্ত্রী আ ফ ম রুহুল হক জানান, মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজগুলোতে ভর্তির জন্য চলতি বছর থেকে আর ভর্তি পরীক্ষা নেওয়া হবে না। মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকের জিপিএর ভিত্তিতেই এমবিবিএস ও বিডিএস কোর্সে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে।

এর প্রতিবাদে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীরা রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে আন্দোলন শুরু করে।

ড. ইউনুস আলী আকন্দ একটি রিট আবেদন করলে তার প্রাথমিক শুনানি করে বিচারপতি নাঈমা হায়দার ও মুহাম্মদ খুরশীদ আলম সরকারের হাইকোর্ট বেঞ্চ গত ১৪ অগাস্ট একটি রুল জারি করে।

পরীক্ষা পদ্ধতি বাতিল করে জিপিএর ভিত্তিতে মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজগুলোতে শিক্ষার্থী ভর্তির সিদ্ধান্ত কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না,তা জানতে চাওয়া হয় ওই রুলে।

এরপর ইউনুস আলী পরীক্ষার মাধ্যমে শীক্ষার্থী ভর্তি চেয়ে হাইকোর্টে এই সম্পূরক আবেদন করেন।

এরইমধ্যে গত ২ সেপ্টেম্বর ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের সঙ্গে বৈঠক করে শিক্ষামন্ত্রী রুহুল হক সাংবাদিকদের জানান, আদালত থেকে মামলাটি তুলে নেওয়া হলে সরকার এবার প্রচলিত, অর্থাৎ আগের পদ্ধতিতেই ভর্তি প্রক্রিয়া শুরু করবে। তা না হলে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী।

কাজ এগিয়ে রাখার লক্ষ্যে শিগগিরই ভর্তির বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে বলেও জানান মন্ত্রী।

অবশ্য রিটকারী ইউনুস আলী আকন্দ সে সময় বলেছিলেন, সরকার পরীক্ষার মাধ্যমে মেডিকেলে শিক্ষার্থী ভর্তির উদ্যোগ নিলেই তিনি হাই কোর্ট থেকে মামলা তুলে নেবেন।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম/এসএন/আরএ/জেকে/১৩০১ ঘ.