ক্যাটেগরিঃ bdnews24

ঢাকা, জুন ০৫ (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)- ক্যান্সারের সঙ্গে লড়াই করে অবশেষে হার মানলেন পপগুরু আজম খান। রোববার সকালে ঢাকা সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে মৃত্যু হয়েছে তার।

সিএমএইচের চিকিৎসক কর্নেল ডা. আজিজুল ইসলাম বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানিয়েছেন, সকাল ১০টা ২০ মিনিটে মারা যান আজম খান।

ক্যান্সারাক্রান্ত আজম খানের বয়স হয়েছিলো ৬১ বছর। তাকে কয়েকদিন আগেই স্কয়ার হাসপাতাল থেকে সিএমএইচে নেওয়া হয়।

আজম খানের দীর্ঘদিনের বন্ধু ফকীর আলমগীর বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, আজম খানের দাফনসহ পরবর্তী আনুষ্ঠানিকতা সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটসহ অন্য সাংস্কৃতিক নেতাদের সঙ্গে আলোচনার পর ঠিক হবে।

শরীরের বিভিন্ন অংশে ক্যান্সার ছড়িয়ে পড়ায় আজম খানের শারীরিক অবস্থার উন্নতির কোনো আশা দিতে পারেননি চিকিৎসকরা।

নয় দিন আগে আজম খানের অবস্থার অবনতি ঘটে। সে দিন থেকেই স্কয়ার হাসপাতালে লাইফ সাপোর্টে ছিলেন বাংলাদেশে পপ সঙ্গীতের এই অগ্রপথিককে।

ব্যান্ড দল উচ্চারণ গড়ার মধ্য দিয়ে সঙ্গীতাঙ্গনে আত্মপ্রকাশকারী আজম খানের মুখগহ্বরের ২০১০ সালে ক্যান্সার ধরা পড়ে। এ জন্য দুবার তাকে সিঙ্গাপুরে নিয়েও চিকিৎসা করানো হয়।

তবে গত নভেম্বরে সিঙ্গাপুরে শেষ বারের চিকিৎসা সম্পূর্ণ না করেই আজম খান ফিরে আসেন।

১৯৫০ সালের ২৮ ফেব্র”য়ারি ঢাকার আজিমপুরে জন্ম নেওয়া মাহবুবুল হক খান সঙ্গীতাঙ্গনে পরিচিত হয়ে ওঠেন আজম খান নামে।

২১ বছর বয়সে মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেওয়া এ সঙ্গীত শিল্পী স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে গঠন করেন ব্যান্ড দল ‘উচ্চারণ’। বাংলাদেশ টেলিভিশনে তার প্রথম কনসার্ট প্রচারিত হয় ১৯৭২ সালে। ১৯৭৪-৭৫ সালে বাংলাদেশ টেলিভিশনে ‘রেললাইনের ওই বস্তিতে’ গেয়ে স্থান করে নেন বাংলার মানুষর হৃদয়ে।

বাংলাদেশে পপ সঙ্গীতের জনপ্রিয়তা আজম খানের হাত ধরেই। দেশে এ জগতে কিংবদন্তী মনে করা হয় তাকে। আজম খানের কণ্ঠে ‘ওরে সালেকা, ওরো মালেকা’, ‘আলাল ও দুলাল’, ‘অনামিকা’, ‘অভিমানী, ‘আসি আসি বলে’ গানগুলো এখনো ফেরে মানুষের মুখে মুখে।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম/এনআইএইচ/এআরআর/এমআই/১১৩০ ঘ.