ক্যাটেগরিঃ bdnews24

গাজীপুর, অগাস্ট ৩০ (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)- বেহাল সড়ক নিয়ে সমালোচনার মুখে থাকা যোগাযোগমন্ত্রী মনে করেন, সড়ক মেরামতে ‘অক্লান্ত পরিশ্রম’ করায় তার ‘সাধুবাদ’ পাওয়া উচিত।

মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের চলমান সংস্কার কাজ পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে যোগাযোগমন্ত্রী বলেন, “সড়কে যারা চলাচল করছেন তাদেরও তৃপ্ত থাকার কথা। রাস্তা মেরামতে যে অক্লান্ত পরিশ্রম করেছি তার জন্য আপনাদের কাছ থেকে সাধুবাদ পাওয়ার কথা।”

দেশের সব ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তা চলাচলের উপযোগী করা হয়েছে বলেও এ সময় দাবি করেন মন্ত্রী।

“ঈদে ঘরে ফেরা মানুষ এখন ওই পথেই চলাচল করছে। একজন মানুষের পক্ষে যা সম্ভব তার সর্বোচ্চ চেষ্টা করা হয়েছে।”

বেহাল মহাসড়কের কারণ দেখিয়ে ঢাকা-ময়মনসিংহ রুটে চলতি মাসে সপ্তাহখানেক বাস চলাচল বন্ধ রেখেছিলেন মালিকরা। এ অবস্থায় প্রধানমন্ত্রীর ধমক শুনে সড়ক পর্যবেক্ষণে যান যোগাযোগমন্ত্রী। পরবর্তীতে সড়ক পরিস্থিতি নিয়ে দলে এবং দলের বাইরে প্রবল সমালোচনার মুখে পড়েন সৈয়দ আবুল হোসেন।

ক্ষমতাসীন জোটের সাংসদ রাশেদ খান মেনন সংসদে তার পদত্যাগও দাবি করেন।

এক পর্যায়ে বেহাল সড়কের জন্য জনগণের কাছে দুঃখপ্রকাশ করে তিনি ‘স্যরি’ বলেন। এর আগে তিনি সবার ‘সহানুভূতিও’ চেয়েছিলেন।

ওই সমলোচনামুখর সময়ে পদত্যাগ করেন সড়ক ও জনপথ বিভাগের প্রধান প্রকৌশলী।

মঙ্গলবার ওই মহাসড়ক পরিদর্শনের সময় আবুল হোসেন বলেন, “ঘরে ফেরা মানুষ ফিরে আসার সময় মহাসড়কে আরো পরিবর্তন দেখতে পাবেন।”

“মাসের পর মাস বৃষ্টি হলে বিটুমিনের রাস্তা খারাপ হবেই। এই রাস্তাকে মেরামত করে যেটুকু চলাচল উপযোগী করা হয়েছে আমি মনে করি আপনাদেরও তাতে সন্তুুষ্ট থাকার কথা।”

সড়কের পাশের অবৈধ স্থাপনা বিষয়ে মন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, “স্থাপনা উচ্ছেদ করতে গেলে হাইকোর্টের ইনজাংশন জারি হতে পারে।”

“এখন প্রধান কাজ রাস্তার ড্রেনেজ ব্যবস্থা এবং নিচু অংশ উঁচু করার কাজ,” উল্লেখ করে আবুল হোসেন বলেন, “[এটি] একটি দীর্ঘমেয়াদি প্রক্রিয়া। এ জন্য আলাদ প্রকল্প নিতে হবে।”

সড়ক পরিদর্শনের সময় মন্ত্রীর সঙ্গে সড়ক ও জনপথের ভারপ্রাপ্ত প্রধান প্রকৌশলী আব্দুল কুদ্দুস, সড়ক ও জনপথের ঢাকা বিভাগীয় তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মো. শাহাবুদ্দিন খান, গাজীপুরের নির্বাহী প্রকৌশলী শেখ শফিকুল আলমসহ সংশ্লিষ্ট বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। এর আগে মন্ত্রী ঢাকা-টাঙ্গাইল মহসড়ক পরিদর্শন করেন।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম/প্রতিনিধি/পিডি/১৮২৩ ঘ.