ক্যাটেগরিঃ bdnews24

 

ঢাকা, অগাস্ট ৩১ (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)- যোগাযোগমন্ত্রীর পদচ্যুতির দাবিতে আগামী ১৩ সেপ্টেম্বর সারাদেশে অবস্থান কর্মসূচি পালন করবে ‘ছাত্র-শিক্ষক-পেশাজীবী-জনতা’ নামের একটি সংগঠন।

সড়ক দুর্ঘটনায় তারেক মাসুদ ও আশফাক মুনীরসহ পাঁচজনের মৃত্যুর ঘটনায় যোগাযোগমন্ত্রী সৈয়দ আবুল হোসেনর পদচ্যুতি দাবি করছে সংগঠনটি।

কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে বুধবার চলমান অবস্থান কর্মসূচি থেকে নতুন এ কর্মসূচি ঘোষণা করেছে সংগঠনটি।

সংগঠনের উদ্যোক্তা ও কর্মসূচির সঞ্চালক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক রোবায়েত ফেরদৌস বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “১৩ সেপ্টেম্বর তারেক মাসুদ ও আশফাক মুনীরের দুর্ঘটনার এক মাস পূর্ণ হবে। এদিনটি স্মরণেই কর্মসূচি দেওয়া হয়েছে।”

তিনি বলেন, যোগাযোগমন্ত্রীর পদচ্যুতি না হওয়া পর্যন্ত এই আন্দোলন চলবে। ১৩ সেপ্টেম্বরের মধ্যে যোগাযোগমন্ত্রীর পদচ্যুতি না হলে ধাপে ধাপে সারাদেশে প্রতীক অনশন ও গণঅনশন কর্মসূচির ডাক দেওয়া হবে।

“তাতেও যদি যোগাযোগমন্ত্রীকে পদচ্যুতি না করা হয় তাহলে শহীদ মিনারে আমরণ অনশনের মাধ্যমে দাবি আদায় করা হবে,” বলেন রোবায়েত।

অবিলম্বে যোগাযোগমন্ত্রীর পদচ্যুতির দাবি জানিয়ে রোবায়েত নৌপরিবহন মন্ত্রীর কর্মকাণ্ডেরও সমালোচনা করেন।

গত ১৩ অগাস্ট মানিকগঞ্জের ঘিওরের জোকা এলাকায় এক সড়ক দুর্ঘটনায় চলচ্চিত্রকার তারেক মাসুদ ও এটিএন নিউজের প্রধান আশফাক মুনীরসহ পাঁচজন নিহত হন। আহত হন তারেকের স্ত্রী ক্যাথরিন মাসুদ, চিত্রকর ঢালী আল মামুন ও তার স্ত্রী চিত্রকর দিলারা বেগম জলি আহত হন।

বুধবার দুপুর ১২টা ২০ মিনিটে জাতীয় সংগীতের মাধ্যমে কর্মসূচি শুরু করে ‘ছাত্র-শিক্ষক-পেশাজীবী-জনতা’ নামের সংগঠনটি।

অবস্থান কর্মসূচিতে লেখক ও কলামিস্ট সৈয়দ আবুল মকসুদ বলেন, “চট্টগ্রামে ৪০ স্কুলছাত্রের মৃত্যুতে সরকারের টনক নড়েনি। তারেক মাসুদ ও মিশুক মুনীরের মৃত্যুর শোক এখনো কাটিয়ে উঠতে পারেনি দেশবাসী। এতেও সরকারের টনক নড়েনি। তাই আমরা মাঠে নেমে এসেছি।”

“সরকারকে সহায়তা করা গণতান্ত্রিক সমাজের নাগরিকের কর্তব্য,” উল্লেখ করে মকসুদ বলেন, “এ কারণেই ঈদের দিন বিক্ষুব্ধ মানুষ শহীদ মিনারে অবস্থান নিতে বাধ্য হয়েছে।”

যোগাযোগমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবিসহ সাত দফা দাবিতে আন্দোলন করছে ‘ছাত্র-শিক্ষক-পেশাজীবী-জনতা’ নামের সংগঠনটি।

তাদের অন্য দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে- অবৈধ লাইসেন্স প্রাপ্তি বন্ধ করা, সড়ক ও পরিবহন খাতে দুর্নীতিরোধে কার্যকর ব্যবস্থা নেওয়া, গণপরিবহন খাতে দ্রুত শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনা, সড়ক দুর্ঘটনা প্রতিরোধে বিদ্যমান আইন কঠোর করা, চালকদের জন্য যথাযথ প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা, সড়ক ও পরিবহনসহ প্রশাসনের সর্বস্তরে কার্যকর জবাবদিহিতার কাঠামো প্রতিষ্ঠা করা।

ইতোমধ্যে সংগঠনটি গত ২৪ অগাস্ট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের প্রতিবাদ সমাবেশ পালন করেছে। ওই কর্মসূচিতেই সংগঠনটির পক্ষ থেকে ৩১ অগাস্টের মধ্যে যোগাযোগমন্ত্রী সৈয়দ আবুল হোসেনকে পদচ্যুত করার দাবি তোলা হয়।

কর্মসূচিতে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি-সিপিবি সাধারণ সম্পাদক মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম, বাসদের সাধারণ সম্পাদক খালেকুজ্জামান, সাংবাদিক আশফাক মুনীরের ভাই আসিফ মুনীর, সাংবাদিক জ ই মামুন, মুন্নী সাহা, সম্মিলিত নারী সমাজের সমন্বয়ক ফরিদা আক্তার, র‌্যাবের গুলিতে পা হারানো বরিশালের কলেজছাত্র লিমন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম/এসএন/সিএস/পিডি/১৬০৮ ঘ.