ক্যাটেগরিঃ bdnews24

ঢাকা, অগাস্ট ৩১ (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)- কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে অবস্থান কর্মসূচি পালনকারীরা তাদের গ্রামের বাড়িতে যেতে কতক্ষণ লাগে তা দেখেছেন কি না জানতে চেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

শেখ হাসিনা বুধবার বলেন, “যারা আজকে শহীদ মিনারে ধর্মঘট করছেন, ওনারা তো নিজের বাড়িতে যাননি। ওনারা যখন নিজের বাড়িতে যাত্রা শুরু করেননি, তখন ওনারা বললেন কীভাবে ঠিকভাবে যাওয়া যায় না?

“ওনারা আজকে রওনা দিলেও কয়েক ঘণ্টার মধ্যে নিজেদের গ্রামের বাড়িতে পৌঁছে যাবেন। ওনারা নিজের বাড়িতে না গিয়ে এভাবে বলে দেওয়া তো ঠিক নয়।”

প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবনে গণভবনে ঈদের দিন সকালে সর্বস্তরের জনগণের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময়ের পর সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন।

‘ছাত্র-শিক্ষক-পেশাজীবী-জনতার’ ঈদের দিন কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে অবস্থান কর্মসূচি প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী এর আগে বলেন, “আমরা প্রশ্ন- মানুষ কি স্বস্তিমতো বাড়িতে ফিরতে পারেনি। আমি তো বলবো, অন্যবারের চেয়ে এবার আরো ভালোভাবে সবাই নিজ নিজ এলাকায় গেছেন। কারণ, এবার সড়ক পথের পাশাপাশি রেল ও নৌপথেও অনেকে যাতায়াত করেছেন।”

যারা ঈদের ছুটিতে বাড়ি গেছেন, তারা আবার ঠিকভাবেই ঢাকায় ফিরতে পারবেন বলেও শেখ হাসিনা আশা প্রকাশ করেন।

সড়কের বর্তমান অবস্থার জন্য এর আগের সরকারগুলোর সড়ক সংস্কার না করাকেই দায়ী করেন প্রধানমন্ত্রী।

তিনি বলেন, “এর আগের সরকারগুলো মহাসড়কের পাশে পরিকল্পনা ছাড়াই কলকারখানার অনুমোদন দিয়েছে। যাতে করে এই বর্ষা মৌসুমে জমে থাকা পানি সরে যেতে পারেনি।

“শ্রবণ মাসের প্রবল বর্ষণের পর নালা কেটে, মেশিন ব্যবহার করে পানি সরিয়ে রাস্তা চলাচলের উপযোগী করা হয়েছে।”

“সাত বছর কোনো কাজ হয়নি,” উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “বার্ষিক কর্মসূীিতে যে টাকা রাখা হয়েছে- তা দিয়েও সড়ক মেরামত সম্ভব নয়। এজন্য আমরা ১৪০০ কোটি টাকার প্রজেক্ট নিয়েছি- রাস্তা মেরামতের জন্য। শুকনো মৌসুম শুরু হলেই পুরোদমে রাস্তা মেরামতের কাজ শুরু হবে।”

ঈদের পর বিরোধী দলের আন্দোলন কর্মসূচি প্রসঙ্গে আরেক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “জনগণ ভালোভাবে ঈদ করতে পেরেছে। অনেক আগে থেকেই অনেকে সমস্যার কথা বলে ও লেখালেখি করে মানুষকে ব্যাতিব্যস্ত করে রেখেছেন।”

“বিরোধী দল কী নিয়ে আন্দোলন করবে? মানুষ তো ভালো আছে। ওনারা কী চান না- মানুষ ভালো থাকুক ?”

এর আগে দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “আশা করি, সবাই আনন্দের সঙ্গে ঈদ উদযাপন করেছেন। জনগণের সেবা করাই আমাদের লক্ষ্য। আমরা চাই, সবাই যেন আনন্দের সঙ্গে ঈদ উদযাপন করে।”

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম/এসইউএম/পিডি/১৫৪৩ ঘ.