ক্যাটেগরিঃ bdnews24

 

ঢাকা, অগাস্ট ৩১ (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)- তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা বাতিলের রায় সাবেক প্রধান বিচারপতি এ বি এম খায়রুল হক ‘টাকার বিনিময়ে’ দিয়েছেন বলে দাবি করেছে বিএনপি।

দলটির চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া বুধবার দুপুরে এ দাবি করেছেন।

তত্ত্বাবধায়ক সরকার বিষয়ে সংবিধানের ত্রয়োদশ সংশোধনী বাতিলে সুপ্রিম কোর্টের দেওয়া রায়ের প্রতি ইঙ্গিত করে তিনি বলেছেন, “তিনি [খায়রুল হক] টাকার বিনিময়ে রায় দিয়েছেন- তা আজ স্পষ্ট।”

এরপর একটি গানের কলি উদ্ধৃত করে খালেদা জিয়া বলেন, “বিচারপতি তোমার বিচার করবে যারা, আজ জেগেছে সেই জনতা।”

রাজধানীতে লেডিস ক্লাবে সমাজের বিভিন্ন স্তরের মানুষের সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময়ের পর সাংবাদিকদের এ সব কথা বলেন খালেদা জিয়া।

গত ১০ মে সংবিধানের ত্রয়োদশ সংশোধনী বাতিল করে সুপ্রিম কোর্ট। তবে এর আওতায় আগামী দুটি সংসদ নির্বাচন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে হতে পারে বলে মত দেওয়া হয়।

তৎকালীন সাবেক প্রধান বিচারপতি এ বি এম খায়রুল হকের নেতৃত্বে আপিল বিভাগের সাত বিচারপতির বেঞ্চ এ রায় দেয়।

এরপর পঞ্চদশ সংশোধনীর মধ্য দিয়ে সাংবিধানিকভাবে তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা বাতিল হয়।

তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা বহাল থাকলে সর্বশেষ অবসরপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি হিসেবে এ বি এম খায়রুল হকের ওই সরকারের প্রধান উপদেষ্টা হওয়ার কথা।

বিএনপি শুরু থেকেই এ সংশোধনীর বিরোধিতা করে আসছিলো। সংশোধনীর প্রতিবাদে দলটি হরতালও পালন করেছে।

খালেদা বুধবার দাবি করেন, ওই সংশোধনী একদলীয় শাসনে দেশ পরিচালনার জন্য করা হয়েছে।

তিনি বলেন, “চিরদিন ক্ষমতায় থাকার জন্য ওই সংশোধনী আনা হয়েছে। আমরা বলে দিতে চাই- যত আইনই করা হোক, তত্ত্বাবধায়ক সরকার ছাড়া কোনো দলীয় সরকারের অধীনে দেশে নির্বাচন হতে দেওয়া হবে না।”

বিচার বিভাগ দলীয়করণ ও ধ্বংসের অভিযোগ এনে এজন্যও সাবেক প্রধান বিচারপতিকে দায়ী করেন বিরোধীদলীয় নেতা।

তিনি বলেন, “খায়রুল হকই এ বিচার বিভাগকে ধ্বংস করেছেন। দলীয়করণ করেছেন।”

বিএনপি সমর্থক আইনজীবী এম ইউ আহম্মেদের মৃত্যু পুলিশি হেফাজতে নির্যাতনে হয়েছে বলেও দাবি করেন খালেদা।

তিনি বলেন, “একজন ভালো মানুষকে মামলা-মোকাদ্দমা দিয়ে পুলিশ টর্চার করেছে। এতে তিনি অজ্ঞান হয়ে পড়েন। পরে তার মৃত্যু হয়।”

হাইকোর্টে হট্টগোলের মামলায় পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হওয়ার পর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার মারা যান আহম্মেদ। তার পরিবার দাবি করছে, পুলিশের নির্যাতনে তার মৃত্যু হয়েছে।

তবে পুলিশ বলছে, গ্রেপ্তারের পরপর আহম্মেদের হার্ট অ্যাটাক হয়।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম/এসএম/পিডি/১৮৩৭ ঘ.