ক্যাটেগরিঃ bdnews24

 

ঢাকা, সেপ্টেম্বর ০৬ (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)- মনমোহন সিংয়ের সঙ্গে নির্ধারিত বৈঠকের বিষয়বস্তু নিয়ে দলের শীর্ষনেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন খালেদা জিয়া।

মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯টা থেকে ১১টা পর্যন্ত বিএনপি চেয়ারপার্সনের গুলশানের কার্যালয়ে এই বৈঠক হয়।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী মনমোহনের সঙ্গে বুধবার বিকালে সোনারগাঁও হোটেলে বিরোধীদলীয় নেতার বৈঠকের কথা রয়েছে।

স্থায়ী কমিটির বৈঠকের পর দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাংবাদিকদের বলেন, “ভারতের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বুধবারের বৈঠকের বিষয়বস্তু নিয়ে স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে বিরোধী দলীয় নেতা আলোচনা করেছেন। তাদের পরামর্শ তিনি নিয়েছেন।”

“কাল বুধবার মনমোহন সিংয়ের সঙ্গে বৈঠকের পর এ বিষয়ে গণমাধ্যমকে বিস্তারিত জানানো হবে।”

বিএনপি ভারতীয় প্রধানমন্ত্রীর সফরকে স্বাগত জানালেও হুঁশিয়ারি দিয়েছে, দেশবিরোধী কোনো চুক্তি হলে আন্দোলনে যাবে তারা।

মনমোহনের সফরে ঢাকা-দিল্লি সহযোগিতার ‘রূপরেখা’ চুক্তি হয়েছে। আলোচনায় থাকলেও হয়নি তিস্তা ও ফেনী নদীর পানিবণ্টন চুক্তি। ট্রানজিট বাস্তবায়নে দুই দেশের মধ্যে বিনিময় হয়নি সম্মতিপত্রও।

বিএনপি অভিযোগ করে আসছিলো- ট্রানজিটের নামে ভারতকে করিডোর দিতে যাচ্ছে সরকার। এর বিরুদ্ধে আন্দোলনের হুমকিও দিয়ে রেখেছে দলটি।

বৈঠকে স্থায়ী কমিটির সদস্যদের পাশাপাশি বিএনপির সহসভাপতি টি এইচ খান, সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী এম মোরশেদ খান, সাবেক পানিসম্পদমন্ত্রী হাফিজউদ্দিন আহমেদ, সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আলতাফ হোসেন চৌধুরী, সাবেক খাদ্যমন্ত্রী চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ, সাবেক সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী সেলিমা রহমান, ঢাকার মেয়র সাদেক হোসেন খোকা, সাবেক প্রধানমন্ত্রীর পররাষ্ট্র বিষয়ক উপদেষ্টা রিয়াজ রহমান, সাবেক পররাষ্ট্র সচিব শমসের মবিন চৌধুরী, সাবেক হাইকমিশনার সাবিহ উদ্দিন আহমেদ, এফবিসিসিআইয়ের সাবেক সভাপতি আব্দুল আউয়াল মিন্টু, চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা শওকত মাহমুদ, শামসুজ্জামান দুদু উপস্থিত ছিলেন।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্যদের মধ্যে আর এ গনি, মাহবুবুর রহমান, এম কে আনোয়ার, আ স ম হান্নান শাহ, মির্জা আব্বাস, নজরুল ইসলাম খান, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, আবদুল মঈন খান, রফিকুল ইসলাম মিয়া ও ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর উপস্থিত ছিলেন।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম/এসএম/এমআই/পিডি/২৩৪০ ঘ.