ক্যাটেগরিঃ bdnews24

শেরপুর, সেপ্টেম্বর ১০ (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)- তিস্তা চুক্তি না হলে ভারতকে ট্রানজিট সুবিধাও দেওয়া হবে না বলে জানিয়েছেন কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী।

শনিবার শেরপুরে এক জনসভায় তিনি বলেছেন, ঢাকা সফরের সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ কথা ভারতের প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংকে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন।

মতিয়া চৌধুরী বলেন, “উনি (প্রধানমন্ত্রী) পরিষ্কার বলেছেন, তিস্তার পানি না হলে ট্রানজিট হবে না। পানি আমাদের দরকার, তবে তা আমরা সম্মানজনকভাবে চাই। তিস্তার পানি না হলে ট্রানজিটও হবে না। সোজা বাংলা ভাষায় ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে এ কথা বলে দেওয়া হয়েছে।”

১৯৮০ সালে তৎকালীন রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান ভারতের সঙ্গে ট্রানজিট চুক্তি করেছিলেন বলে দাবি করেছেন কৃষিমন্ত্রী।

তিনি বলেন, “ট্রানজিট চুক্তি জিয়া জীবিত থাকতে ১৯৮০ সালে ভারত গিয়ে করেছিলেন। তখন তার সঙ্গে ছিলেন তৎকালীন বাণিজ্যমন্ত্রী তানভীর আহম্মদ সিদ্দিকী। ভারতের বাণিজ্যমন্ত্রী প্রণব মুখার্জীর সঙ্গে তানভীর সিদ্দিকী ট্রানজিট চুক্তি করেন। কিন্তু তখন ট্রানজিটের সম্মতিপত্র দেওয়া হয়নি।”

কৃষিমন্ত্রী বলেন, “ভারতের প্রধানমন্ত্রীর সফরের পর অনেকেই বলছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভারতের সঙ্গে গোপন চুক্তি করেছেন। কিন্তু গোপন চুক্তি তো দূরের কথা, শেখ হাসিনা কোনো চুক্তিই করলেন না।”

দুপুরে নালিতাবাড়ি উপজেলা পরিষদ চত্বরে কৃষি পুনর্বাসন কর্মসূচির আওতায় বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ চাষিদের মাঝে রোপা আমনের চারা বিতরণ ও গৃহনির্মাণ সহায়তার নগদ টাকা বিতরণ অনুষ্ঠানে কৃষিমন্ত্রী প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

নালিতাবাড়ি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বদিউজ্জামান বাদশার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন কৃষি স¤প্রসারণ অধিদপ্তরের পরিচালক (সরেজমিন) ইউনুছ আলী।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন শেরপুরের জেলা প্রশাসক মো. নাসিরুজ্জামান, ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপারিনটেনডেন্ট মো. আনিসুর রহমান প্রমুখ।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম/প্রতিনিধি/ডিডি/এসইউ/২০১০ঘ.