ক্যাটেগরিঃ bdnews24

ঢাকা, সেপ্টেম্বর ২৬ (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)- অর্থায়ন সংক্রান্ত আইন সংশোধনের দাবিতে টানা দ্বিতীয় দিনের মতো রাস্তায় নেমেছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

রাজধানীর রাইসা বাজার-নয়াবাজার সড়কে তাদের অবরোধের কারণে সদরঘাট থেকে গুলিস্তান পর্যন্ত সড়কে যানচলাচল বন্ধ রয়েছে। ধোলাই খাল সংযোগ সড়ক ও ঢাকা-দোহার সড়কে সৃষ্টি হয়েছে তীব্র যানজট।

সোমবার সকাল পৌনে ৯টার দিকে প্রায় দেড় হাজার শিক্ষার্থী রাইসা বাজার ও নয়াবাজার মোড়ের মাঝামাঝি এলাকায় সড়কে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে। আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা জানিয়েছে, দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত তারা রাস্তা ছাড়বে না। পুলিশ তাদের ঘিরে রেখেছে।

এদিকে বিশৃঙ্খলার আশঙ্কায় সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটক বন্ধ করে দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। প্রক্টর ড. অশোক কুমার সাহা বলছেন, শিক্ষার্থীদের শান্ত করে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করছেন তারা।

শিক্ষার্থীদের বাইরে যাওয়া ঠেকাতে ছাত্রলীগের কর্মীদের ফটকে অবস্থান নিতে দেখা গেছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থায়ন নিয়ে জটিলতা অবসানের দাবিতে রোববার থেকে এই রাজপথে এসে আন্দোলন শুরু করে এ প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা। ওইদিন তারা সকাল সাড়ে ১১টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনের সড়কে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করে। এক পর্যায়ে পুলিশ তাদের লাঠিপেটা করে হটিয়ে দিলে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা কয়েকটি গাড়ি ভাংচুর করে।

সরকারদলীয় সংসদ সদস্য মোসলেমউদ্দিন আহমেদ ওই সময় শিক্ষার্থীদের ঘেরাওয়ের মুখে পড়েন।

শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ শিক্ষার্থীদের দাবির প্রতি সমমর্মিতা দেখিয়েছেন। অবশ্য ভাংচুরের সমালোচনা করেছেন তিনি।

১৮৮৪ সালে প্রতিষ্ঠিত জগন্নাথ কলেজকে ২০০৫ সালে একটি আইনের মাধ্যমে পাবলিক বা সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে উন্নীত করা হয়। তবে আইনের ২৭ (৪) ধারায় বলা হয়েছে, পাঁচ বছর বছর বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যয়ভার তাদের নিজেদেরই বহন করতে হবে।

শিক্ষার্থীরা আইনের এ ধারাটি পরিবর্তনের দাবি জানিয়ে আসছে কয়েক বছর ধরে। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদেরও সমর্থন রয়েছে।

শিক্ষামন্ত্রী বলেছেন, এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট সবার সঙ্গে আলোচনা করে একটি সমাধান বের করা হবে।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম/প্রতিনিধি/জেকে/০৯৩০ ঘ.