ক্যাটেগরিঃ bdnews24

 

ঢাকা, সেপ্টেম্বর ৩০ (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)- বিএনপি চেয়ারপার্সনের বক্তব্যের ব্যাখ্যায় দলটির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন অনুষ্ঠানকেই খালেদা জিয়া ‘ফাইনাল খেলা’ অভিহিত করেছেন।

আর সেই নির্বাচন সরকারের নিয়ন্ত্রণে হলে বিএনপি তাতে অংশ নেবে না বলেও হুঁশিয়ার করেছেন ফখরুল।

জাতীয়তাবাদী উলামা দলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে শুক্রবার নয়া পল্টনে এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব বলেন, “আমাদের নেত্রী ফাইনাল খেলার কথা বলেছেন। এই ফাইনাল খেলা হচ্ছে নিরপেক্ষ নিদর্লীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচনের মাধ্যমে সরকার হঠানোর খেলা।”

“এজন্য প্রথমে লেভেল প্লেইং ফিল্ড তৈরি করতে হবে। ফাইনাল খেলায় রেফারি ও লাইন্সম্যান আপনাদের (সরকার) হলে সেই খেলা আমরা খেলবো না”, যোগ করেন ফখরুল।

এই দাবিতে সারাদেশে জনমত গড়ে তুলতে খালেদা জিয়া ঘোষিত কর্মসূচি সফল করারও আহবান জানান তিনি।

গত ২৭ সেপ্টেম্বর নয়া পল্টনে সমমনাদের নিয়ে এক জনসভা থেকে সিলেট, রাজশাহী ও চট্টগ্রাম অভিমুখে এই রোড মার্চ কর্মসূচির ঘোষণা দেন বিরোধী দলীয় নেতা খালেদা জিয়া।

বৃহস্পতিবার এক অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, “আমরা বর্তমান সরকারের দুর্নীতি ও অপশাসনের কথাগুলো দেশের জনগণকে জানাতে কর্মসূচি দিয়েছি। এসব কর্মসূচি সফল করতে হবে। ওই কর্মসূচি শেষ করে আমরা ফাইনাল খেলার জন্য রেডি হবো।”

বিরোধীদলীয় নেতার এই বক্তব্যের জবাবে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ওবায়েদুল কাদের শুক্রবার বলেছেন, দিন-তারিখ ঘোষণা করে সরকারের পতন ঘটানো যায় না।

তার মতে, গত ২৭ মার্চের জনসভা খেলার প্রথম রাউন্ড হয়ে থাকলে সেকেন্ড রাউন্ড, কোয়ার্টার ফাইনাল, সেমিফাইনাল না খেলেই একেবারে ফাইনাল খেলার ‘দিবাস্বপ্ন’ দেখছে বিএনপি।

অন্যদিকে মির্জা ফখরুল বলছেন, বর্তমান সরকার দেশকে অনেক পিছিয়ে দিয়েছে। এই সরকারকে হঠাতেই তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে নেমেছেন তারা।

নয়া পল্টনে মহানগর বিএনপি কার্যালয়ে আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি বলেন, “আমাদের নেত্রী ইতোমধ্যে বলে দিয়েছেন, তত্ত্বাবধায়ক সরকার ছাড়া এ দেশে কোনো নির্বাচন হবে না, হতে দেওয়া হবে না। এ জন্য আমরা আন্দোলনের করছি। আমরা নির্র্বাচনের মাধ্যমে সরকার হঠাতে চাই।”

সংবিধানের পঞ্চদশ সংশোধনীর মাধ্যমে তত্ত্বাবধায়ক ব্যবস্থা বাতিল এবং সংবিধানে ধর্মনিরপেক্ষতা প্রতিস্থাপন করে সরকার দেশের মানুষকে বোকা বানাতে চেয়েছে বলেও উল্লেখ করেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব।

উলামা দলের সভাপতি হাফেজ আব্দুল মালেকের সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা অধ্যাপক এম এ মান্নান, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মাসুদ আহমেদ তালুকদার, মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব আবদুস সালাম, উলামা দলের সাধারণ সম্পাদক শাহ মো. নেসারুল হক আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম/এসএম/জেকে/২০০৫ ঘ.