ক্যাটেগরিঃ bdnews24

 

শামীম আহমেদ
বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম প্রতিবেদক

ঢাকা, অক্টোবর ১৯ (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)- গ্রামীণফোনের পাওনা শোধের সময় শেষ হওয়ার পাঁচদিন আগে বিটিআরসি চেয়ারম্যান বলেছেন, তাদের অবশ্যই তিন হাজার ৩৪ কোটি টাকা পরিশোধ করতে হবে।

বুধবার সন্ধ্যায় বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে এক সাক্ষাৎকারে এ কথা বলেন সরকারি সংস্থাটির চেয়ারম্যান জিয়া আহমেদ।

রাজস্ব ও শুল্ক বাবদ তিন হাজার ৩৪ কোটি টাকা পরিশোধের গত ৩ অক্টোবর গ্রামীণফোনকে চিঠি দেয় বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক কমিশন (বিটিআরসি)।

পাওনা পরিশোধে ওই চিঠিতে বিটিআরসির বেঁধে দেওয়া ২১ দিন শেষ হচ্ছে আগামী ২৪ অক্টোবর।

মাত্র পাঁচদিন সময় থাকলেও গ্রামীণফোন ও বিটিআরসি নিজেদের অবস্থানে অনড় রয়েছে।

রোববার এক সংবাদ সম্মেলনে বিটিআরসি নিরীক্ষার স্বচ্ছতায় ‘সন্দেহ’ প্রকাশ করে গ্রামীণফোন পরিচালনা বোর্ডের চেয়ারম্যান সিগভে ব্রেককে বলেন, বিটিআরসির দাবি করা ৩ হাজার ৩৪ কোটি টাকা তারা পরিশোধ করবে না।

আন্তর্জাতিক নিরীক্ষা প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে সুষ্ঠু নিরীক্ষারও দাবি তোলেন তিনি।

‘প্রমাণ হলে সে অংশ অবশ্যই বাদ হবে’

অর্থ পরিশোধ নিয়ে সৃষ্ট পরিস্থিতির সমাধানের পথ কী? জানতে চাইলে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বিটিআরসি কার্যালয়ে সংস্থাটির চেয়ারম্যান জিয়া আহমেদ বলেন, “গ্রামীণফোনের কাছে সরকারের পাওনা তিন হাজার ৩৪ কোটি টাকার ব্যাপারে এখনো আলোচনার পথ খোলা রয়েছে।”

ওই পাওনা নিয়ে আলোচনায় বসতে গ্রামীণফোনকে বিটিআরসি চিঠি দিলেও মোবাইল ফোন অপারেটরটি আলোচনায় বসার শর্ত হিসেবে টাকা পরিশোধের চিঠি প্রত্যাহার করতে বলে। বিটিআরসি এতে সম্মত না হয়ে জানায়, তারা আইনি পথে এগোবে।

এ পরিস্থিতিতে গত শনিবার প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেন টেলিনরের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জন ফ্রেডারিক বাকসাস।

“গ্রামীণফোন ইচ্ছা করলেই বিটিআরসির কাছ থেকে নিরীক্ষা প্রতিবেদন নিয়ে যেতে পারে,” যোগ করে জিয়া বলেন, “তারা ইচ্ছা করলে আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞ নিয়ে এসে এ ব্যাপারে বিটিআরসির সঙ্গে আলোচনায় বসতে পারে।”

“নিরীক্ষা প্রতিবেদনের কোন্ অংশে বেশি টাকা চাওয়া হয়েছে তা প্রমাণ করতে পারলে সে অংশ অবশ্যই বাদ দেওয়া হবে।”

নিরীক্ষা প্রতিবেদনের কোন্ অংশ আন্তর্জাতিক মানের নয় তাও চিহ্নিত করার জন্য গ্রামীণফোনকে আহ্বান জানান বিটিআরসি চেয়ারম্যান।

রোববারের সংবাদ সম্মেলনে টেলিনরের এশিয়া-প্রধান ব্রেককে বলেছিলেন, বিটিআরসি’র নিরীক্ষা প্রতিবেদন তারা দেখতে চান।

“২৪ অক্টোবরের আগেই গ্রামীণফোনকে আলোচনায় বসতে হবে।” উল্লেখ করে জিয়া আহমেদ বলেন, “আমার বিশ্বাস গ্রামীণফোন পাওনা টাকা দিয়ে দেবে।”

‘সব সদস্যের মতামতে সিদ্ধান্ত’

২৪ অক্টোবর পার হয়ে গেলে গ্রামীণফোনের বিষয়ে কী ব্যবস্থা নেওয়া হবে জানতে চাইলে জিয়া বলেন, “এখানে কমিশনের চেয়াম্যানের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী কোনো কাজ হয় না, কমিশনের সব সদস্যের মতামতের ভিত্তিতেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।”

নিরীক্ষা প্রক্রিয়া নিয়ে তিনি বলেন, “ছয় মাস আগে যখন নিরীক্ষা শুরু হয় তখন গ্রামীণফোন কোনো অভিযোগ করেনি। এখন তারা কেন আন্তর্জাতিক নিরীক্ষার কথা বলছে তা পরিষ্কার নয়।”

রোববার এক অনুষ্ঠানে ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী রাজিউদ্দিন আহমেদ রাজু বলেন, গ্রামীণফোনের কাছ থেকে নিরীক্ষার ভিত্তিতে ৩ হাজার ৩৪ কোটি টাকা পাওনার ব্যাপারে সরকার আইনের বাইরে যাবে না।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম/এসএইচএ/পিডি/২১১৫ ঘ.

_________________
সংবাদটি পাঠকের মন্তব্যের জন্য ব্লগে শেয়ার করা হলো। বিডিনিউজ টুয়েন্টিফর ডটকম ব্লগ একটি সিটিজেন জার্নালিজম ভিত্তিক ব্লগ। এ সংবাদটি সম্পর্কে আপনার কোনো প্রতিক্রিয়া থাকলে লিখতে পারেন স্বতন্ত্র পোস্টে। পডকাস্ট করতে পারেন অডিও, ভিডিও মাধ্যমে। কোনো পরামর্শ বা অভিযোগ থাকলে যোগাযোগ করুন ফেসবুক গ্রুপে