ক্যাটেগরিঃ bdnews24

ঢাকা, নভেম্বর ০৫ (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)- ভারতীয় উপমহাদেশের মানুষকে যিনি শুনিয়েছিলেন- ‘মানুষ মানুষের জন্যে, জীবন জীবনের জন্যে’; গঙ্গার কাছে যিনি প্রশ্ন রেখেছিলেন- অসংখ্য মানুষের হাহাকার শুনেও সে কীভাবে বইছে, সেই ভূপেন হাজারিকা আর নেই।

দুটি কিডনিই বিকল হয়ে যাওয়ায় চার দিন ধরে ডায়ালিসিস চলার পর শনিবার বিকেলে মুম্বাইয়ের কোকিলাবেন ধীরুভাই আম্বানি হাসপাতালে মারা যান এই বিখ্যাত সংগীত শিল্পী ও সুরকার।

হাসপাতালের জনসংযোগ বিভাগের প্রধান জয়ন্ত নারায়ণ সাহার বরাত দিয়ে ভারতীয় বার্তা সংস্থা পিটিআই জানায়, গত ২৯ জুন শ্বাসকষ্টের কারণে ধীরুভাই আম্বানি হাসপাতালে ভর্তি হন ৮৬ বছর বয়সী ভূপেন। সে সময় তাকে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে রাখা হয়। মঙ্গলবার পরীক্ষা করে দেখা যায়, তার দুটি কিডনিই অকেজো হয়ে গেছে।

জয়ন্ত নারায়ণ সাহা বলেন, “ডায়ালিসিস চলার এক পর্যায়ে তার দেহের বিভিন্ন অঙ্গ সাড়া দিতে ব্যর্থ হয়। শনিবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে তিনি মারা যান।”

১৯২৬ সালের ৮ সেপ্টেম্বর ভারতের অসম রাজ্যে জন্মগ্রহণ করেন ভূপেন হাজারিকা। মাত্র ১০ বছর বয়স থেকেই গান লিখে সুর দিতে থাকেন। বাংলা ও হিন্দি- দুভাষাতেই আকাশচুম্বি জনপ্রিয়তা পায় তার গান।

তার দরাজ কণ্ঠে ‘বিস্তীর্ণ দুপারে’, ‘আমি এক যাযাবর’, ‘মানুষ মানুষের জন্যে’, ‘সাগর সঙ্গমে’, ‘দোলা হে দোলা’ ‘প্রতিধ্বনি শুনি’ গানগুলো বাংলাদেশের মানুষের হৃদয়েও স্থান করে নেয়। কয়েক বছর আগে ঢাকায় এসেও ভক্ত-শ্রোতাদের মাতিয়ে যান তিনি।

তবে কয়েক বছর আগে হিন্দুত্ববাদী রাজনৈতিক দল বিজেপিতে যোগ দিয়ে ভক্তদের মাঝে বিতর্কিত হন যুক্তরাষ্ট্রের কলাম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে গণযোগাযোগে পিএইচডি করা এই শিল্পী।

ভারতীয় চলচ্চিত্র ও সংগীতে অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে ১৯৭৭ সালে ভারত সরকারের পদ্মশ্রী ও ২০০১ সালে পদ্মভূষণ খেতাব এবং ১৯৯২ সালে দাদাসাহেব ফালকে পুরস্কারসহ অসংখ্য পুরস্কার পেয়েছেন ভূপেন হাজারিকা।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম/জেকে/১৭৫৮ ঘ.