ক্যাটেগরিঃ bdnews24

 

ঢাকা, নভেম্বর ১২ (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)- আগামী নির্বাচনের বিষয়টি মাথায় রেখে সরকারের এখনই দল, জোট ও মন্ত্রিপরিষদের ‘পুনর্মূল্যায়ন’ করা উচিৎ বলে মনে করেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত।

ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি মিলনায়তনে শনিবার দুপুরে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি বলেন, “কিছু কিছু নেতার জন্য সরকারের সাফল্য ম্লান হতে বসেছে। অগণিত নেতাকর্মীর আত্মত্যাগের মধ্য দিয়ে এই সরকার ক্ষমতায় এসেছে। তারা অন্য কোনো কিছুর জন্য এই আত্মত্যাগ করেনি।”

“অনেকে বলছেন, সময় শেষ হয়ে এসেছে। আমি বলবো, সময় শেষ হয়নি। এখনো দুই বছর বাকি আছে। আত্মত্যাগী নেতা-কর্মী, দল-জোট এবং কেবিনেটের পুনর্মূল্যায়ন করতে হবে”, যোগ করেন সুরঞ্জিত।

মন্ত্রিসভার পুণর্মূল্যায়ন করে দেশের সাধারণ মানুষ ও ভোটারদের আকাঙ্খা পূরণ করতে হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

‘ত্যাগী’ নেতাকর্মীদের ‘পুনর্মূল্যায়ন’ ও মন্ত্রিসভার পুনর্গঠন নিয়ে এর আগেও নিজের ‘দুঃখ’ প্রকাশ করে গণমাধ্যমে কথা বলেছেন আইন, বিচার এবং সংসদ বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি সুরঞ্জিত। আগে তিনি দলের সভাপতিমণ্ডলিতে নীতি নির্ধারণী ভূমিকায় থাকলেও বিগত কাউন্সিলে তাকে রাখা হয় উপদেষ্টা পরিষদে।

সুরঞ্জিত বলেন, “সংকট অতিক্রম করতে দূরদর্শীতা ও দক্ষ নেতৃত্বের দরকার। আমি বিশ্বাস করি, প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর (শেখ হাসিনা) এই গুণ আছে। আশা করি, নেত্রী অতীতের মতো এবারো সকল সমস্যা সমাধান করতে সক্ষম হবেন।”

যুদ্ধাপরাধ ও নারায়ণগঞ্জ নির্বাচন

আন্তর্জাতিক মান অনুসরণ করেই যুদ্ধাপরাধের বিচার হচ্ছে উল্লেখ করে সুরঞ্জিত বলেন, “বিশ্বের কোনো দেশে যুদ্ধাপরাধের জামিন হয় না, আমরা তা দিয়েছি। এর চেয়ে উদার কোর্ট বিশ্বে আর কোথাও নাই।”

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, জনগণ সৎ মানুষকে চিনতে ভুল করে না।

তার দাবি, “এ নির্বাচন দুটি বড় বিষয় প্রমাণ করেছে। প্রথমত, সেনাবাহিনী ছাড়াও নির্বাচন সুষ্ঠু হয় এবং দ্বিতীয়ত এ নির্বাচন দলীয় সরকারের অধীনে হলেও এতে দলীয় হস্তক্ষেপ হয়নি।”

গত ৩০ অক্টোবর নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের প্রথম নির্বাচনে বিপুল ভোটে জয়ী হন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভী। আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী শামীম ওসমান প্রথমে কারচুপির অভিযোগ তুললেও পরে তা প্রত্যাহার করেন।

নির্বাচন কমিশনের নিদের্শনা অনুযায়ী নির্বাচনের আগে সেনা মোতায়েন না হওয়ায় ভোটের আগের রাতে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী তৈমুর আলম খন্দকার।

নারায়ণগঞ্জ নির্বাচনকে বাংলাদেশের ইতিহাসে ‘সবচেয়ে সুষ্ঠু নির্বাচন’ দাবি তিনি বলেন, “৭০ শতাংশ ভোটার এ নির্বাচনে অংশ নিয়েছে। মানুষ অত্যন্ত আনন্দের সাথে ভোট দিয়েছে।”

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম/এসইউএম/এসডব্লিউ/জেকে/১৭৩৭ ঘ.