ক্যাটেগরিঃ bdnews24

 

বরগুনা, নভেম্বর ১৮ (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)- যৌতুক চেয়ে বিয়ের আসরে তালাক পাওয়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শওকত আলী খান হীরণ এবং তার ফুফুকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে।

শুক্রবার পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা রুহুল আমীন বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, পটুয়াখালী জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আবদুল কাদের তাদের সাময়িক বরখাস্তের নির্দেশ দেন। গত ১৫ নভেম্বর থেকে এই বরখাস্তের আদেশ কার্যকর হবে।

“অফিস বন্ধ থাকায় শনিবার তাদের কাছে বরখাস্তের চিঠি পাঠানো হবে। তবে মৌখিকভাবে বরখাস্তের কথা তাদের জানিয়ে দেওয়া হয়েছে,” যোগ করেন রুহুল।

হীরণের বাড়ি পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলায়। তিনি কলাপাড়ার উত্তর চাকামইয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক। তার ফুফু তাহমিনা খানম ওই উপজেলারই নীলগঞ্জ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক।

গত ১১ নভেম্বর বিয়ের আসরে স্বামী হীরণকে তালাক দেন ইডেন কলেজের ছাত্রী ফারজানা ইয়াসমীন নিপা। তার বক্তব্য, যৌতুক চাওয়ার কারণে এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি।

বরগুনার আমতলী উপজেলার বাসিন্দা ফারজানা বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, হীরণের ফুফু তাহমিনা বিয়ের আসরে যৌতুক দাবি করেন, আর তা সমর্থন করেন হীরণ।

এ ঘটনাটি সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশ হলে প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী আফসারুল আমিন বিষয়টি তদন্তের নির্দেশ দেন। ফারজানার সাহসী ভূমিকার জন্য তাকে অভিনন্দিত করেন সংসদ উপনেতা সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী।

মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে বরগুনা ও পটুয়াখালী জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তারা ফারজানা ও হীরণের পরিবারের সদস্য এবং প্রতিবেশীদের সঙ্গে কথা বলে তদন্ত করেন।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম/প্রতিনিধি/এসআই/এমএইচপি/এমআই/১৮১৫ ঘ.