ক্যাটেগরিঃ bdnews24

 

ঢাকা, নভেম্বর ৩০ (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)- সরকার ঢাকা সিটি কর্পোরেশনকে (ডিসিসি) দুই ভাগ করায় আন্দোলনের কমসূচি নির্ধারণে বিএনপির সর্বোচ্চ নীতি নির্ধারণী ফোরামের বৈঠক ডেকেছেন বিরোধী দলীয় নেতা খালেদা জিয়া।

বিএনপি চেয়ারপার্সনের প্রেস সচিব মারুফ কামাল খান বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, বুধবার রাত ৮টায় গুলশানে চেয়ারপার্সনের কার্যালয়ে স্থায়ী কমিটির এ বৈঠক হবে।

“বৈঠকে দেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতি, ডিসিসির বিভক্তি, টিপাইমুখে বাঁধ নির্মাণ নিয়ে ভারতীয় প্রধানমন্ত্রীর চিঠির বিষয়ে আলোচনা হবে।”

প্রধান বিরোধী দলের প্রবল আপত্তির মধ্যেই ঢাকা সিটি কর্পোরেশন দুই ভাগ করার বিল মঙ্গলবার জাতীয় সংসদে পাস হয়। সংশোধিত এ আইন অনুযায়ী, ঢাকা উত্তর ও ঢাকা দক্ষিণ নামে আলাদা দুটি সিটি কর্পোরেশন হবে। প্রশাসক নিয়োগ করে ৯০ দিনের মধ্যে নির্বাচন দেওয়া হবে দুই কর্পোরশনে।

বিলটি পাসের আগেই মঙ্গলবার দুপুরে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এক সংবাদ সম্মেলনে ঘোষণা দেন, ডিসিসি ভাগ করা হলে বিএনপি ‘দুর্বার আন্দোলন’ গড়ে তুলবে।

দলটির একাধিক জ্যেষ্ঠ নেতা বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, ডিসিসি ভাগের প্রতিবাদে আন্দোলনের কর্মসূচি চূড়ান্ত করতেই খালেদা জিয়া স্থায়ী কমিটির বৈঠক ডেকেছেন।

তত্ত্বাবধায়ক ব্যবস্থা পুনর্বহালের দাবিতে গত অক্টোবর থেকে বিভাগীয় শহরগুলো অভিমুখে রোড মার্চ কর্মসূচি পালন করে আসছে বিএনপি ও সমমনা দলগুলো। ভারতে বরাক নদীর ওপর টিপাইমুখে বাঁধ নির্মাণের বিষয়টিও তাদের আন্দোলন কর্মসূচিতে যুক্ত হয়েছে স¤প্রতি।

টিপাইমুখে বাঁধ দিয়ে জলবিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণের জন্য গত ২২ অক্টোবর কয়েকটি রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থার সঙ্গে বিনিয়োগ চুক্তি করে মণিপুর রাজ্য সরকার। বিষয়টি চলতি মাসে গণমাধ্যমে আসার পর বাংলাদেশে ব্যাপক প্রতিক্রিয়া হয়। বাঁধ নির্মাণ বন্ধ রেখে যৌথ জরিপের অনুরোধ জানিয়ে গত ২২ নভেম্বর ভারতীয় প্রধানমন্ত্রীকে একটি চিঠি পাঠান খালেদা জিয়া।

তার প্রেস সচিব মারুফ কামাল খান গত ২৬ নভেম্বর জানান, ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং ওই চিঠির জবাব দিয়েছেন। তবে চিঠিতে মনমোহন কি লিখেছেন, তা এখনো প্রকাশ করেনি বিএনপি।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম/এসএম/জেকে/১০১৭ ঘ.