ক্যাটেগরিঃ bdnews24

ঢাকা, ডিসেম্বর ২০ (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)- পাঁচ বছর আগে যাত্রা শুরু হয়েছিলো বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম-এর, যা সংবাদ জগতের নতুন এক দ্বার খুলে দিয়েছিলো বাংলাদেশিদের, বাংলাভাষীদের জন্য।

পাঁচ বছর আগে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম নতুন এক ক্ষেত্র তৈরিতে শুরু করেছিলো পথচলা। এতোটা সময় পেরিয়ে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম-এর উদ্ভাবনী এই শক্তি এখন স্বীকৃত, যার পথ ধরে এগোচ্ছেন অরো অনেকে।

পাঁচ বছর পূর্তিতে মঙ্গলবার নিজেদের সাফল্য, ব্যর্থতা, আগামীর স্বপ্ন তুলে ধরছে দেশের প্রথম অনলাইন এই সংবাদপত্র। এই উপলক্ষে রাজধানীর র‌্যাডিসান হোটেলে আয়োজিত অনুষ্ঠানে অংশ নিচ্ছেন দেশের বিভিন্ন অঙ্গনের শীর্ষপর্যায়ের ব্যক্তিরা।

সরকারের নীতি-নির্ধারক থেকে দেশের রাজনীতিবিদ, বিচারপতি-আইনজীবী, ব্যবসায়ী-শিল্পোদ্যোক্তা, কবি-সাহিত্যিক-সাংবাদিক, সংস্কৃতিকর্মী-সংগঠক, ক্রীড়াবিদ-সংগঠক, সামরিক-বেসামরিক কর্মকর্তা সবাই সঙ্গী হচ্ছেন বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম-এর উদ্ভাবনের পাঁচ বছর উদযাপনে।

আয়োজকরা জানান, অনুষ্ঠানে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম-এর কার্যক্রম অতিথিদের সামনে তুলে ধরা হবে।

প্রতিষ্ঠাকালে শুধু বাংলা ও ইংরেজি এই দুই ভাষায় শুধু সংবাদ পরিবেশনের মাধ্যমে কাজ শুরু হলেও দিনে দিনে এর ব্যাপ্তি বেড়েছে অনেক।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর এর কর্মীরা বলেন, তাদের সংবাদ কক্ষ কখনো ঘুমায় না। একটি সংবাদকক্ষের ২৪ ঘণ্টা সক্রিয় থাকার চর্চা দেশে শুরু করেছিলো বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমই। এখন তা অনুসরণ করছে টেলিভিশন চ্যানেলের পাশাপাশি কয়েকটি সংবাদপত্রও। গুরুত্বপূর্ণ সংবাদ পুরোপুরি আসার আগে পাঠককে স্ক্রলের মাধ্যমে জানানোর নতুন দিকটির সঙ্গে বাংলাদেশিদের পরিচয় করিয়ে দিয়েছিলো দ্বিভাষিক এই নিউজ সাইটই, যা এখন বহুল ব্যবহৃত।

এই নিউজ পোর্টাল এখন সামাজিক যোগাযোগের সক্রিয়তম বাংলাদেশি নিউজ সাইট। ফেইসবুকে এর পেইজে ফ্যান সংখ্যা ৭৬ হাজার ২৫৭। টুইটারের পাতাতেও উপস্থিত সর্বক্ষণ। ফেইসবুকে গড়ে প্রতিদিন ১০ হাজার সক্রিয় অংশগ্রহণকারী এই পেইজে থাকেন।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম-এর এক কর্মকর্তা বলেন, “সামাজিক যোগাযোগের এজেন্ডা তৈরি হয় বেশিরভাগই আমাদের খবর ও মতামত বিভাগে প্রকাশিত লেখা ঘিরে। দেশ-বিদেশের কমিউনিটি ব্লগগুলোতেও আলোচনা ঘোরে আমাদের কন্টেন্ট নিয়ে।”

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমই বাংলাদেশে নাগরিক সাংবাদিকতার প্রথম মঞ্চ। মতপ্রকাশে উন্মুক্ত, তবে বৈরিতা, বিদ্বেষ ও মানহানিকর মন্তব্য সম্পাদকীয় বিবেচনার জন্য রেখে দায়িত্বশীলতার পরিচয়ও দিয়ে আসছে প্রতিষ্ঠানটি। অবাধ মতপ্রবাহ সুরক্ষার নামে সবকিছুই প্রকাশ করার তথাকথিত জনপ্রিয় ধারার বিপরীতে শক্ত সম্পাদকীয় অবস্থান বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম-এর।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম সব বয়সী সব রুচির পাঠকের জন্যই। এ সাইট শিশুদের আনন্দের খোরাক যেমন যোগাচ্ছে, তেমনি ক্রীড়ামোদী, প্রযুক্তিঅনুন্ধিৎসু, সাহিত্যপ্রিয় পাঠকের রুচি বিবেচনায় রেখে তৈরি করেছে আলাদা আলাদা সাইট।

প্রযুক্তিবান্ধব সুস্থ বিনোদনে শিশুদের আগ্রহ তৈরিতে ২০০৭ সালে তৈরি করা ‘কিডজ বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম’ শিশুদের জন্য বাংলা ভাষায় বিশ্বের প্রথম ওয়েবসাইট।

বাজারে আসা সর্বশেষ প্রযুক্তি ও গেজেটের খবর ওয়েবসাইটে বাংলা ভাষায় পরিবেশনের সূচনা টেক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের হাত ধরেই।

শিল্প ও সাহিত্যের খবরাখবরের পাশাপাশি সৃজনশীল রচনা প্রকাশ, বিতর্ক, সমালোচনা, প্রদর্শনীর বহুমাত্রিক উপস্থাপনার আন্তর্জালিক পাটাতন হিসেবে দেশে প্রথম কাজ শুরু করে ‘আর্টস বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম’।

দুর্লভ ধ্র“পদী সাহিত্য সৃষ্টিকে ই-বুকে রূপান্তরের বিপুল কর্মযজ্ঞের মাধ্যমে বাংলা সাহিত্যের হারিয়ে যাওয়া সম্ভার তুলে ধরা হয়েছে আর্টস সাইটে। পাতা উল্টে সাময়িকী পড়ার চিরায়ত স্বাদ নতুন করে ফিরিয়ে এনে তৈরি করা হয়েছে ভি-ম্যাগ বা ভার্চুয়াল ম্যাগাজিন। এটিও বাংলা ভাষায় প্রথম।

খেলাধুলার খবরাখবর, বিশ্লেষণ ও মতামতের নানা প্রকাশনা থাকলেও অনলাইনে এর প্রথম উপস্থিতি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম-এ। বাংলা ও ইংরেজি দুই ভাষাতেই সার্বক্ষণিক খবর পেতে লাখ লাখ পাঠকের ঠিকানা এই দুটি সাইট। শুধু ক্রিকেটের জন্যও রয়েছে আলাদা সাইট।

দেশে মোবাইল ফোনে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের জন্য ওয়েবসাইট চালুর অগ্রদূতও বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম। সর্বস্তরের মানুষের কাছে পৌঁছার চেষ্টায় কম মূল্যের মোবাইল সেট ব্যবহারকারীদের জন্য প্রথম বাংলা ওয়্যাপ সাইটও নির্মাণ এই প্রতিষ্ঠানেরই।

মোবাইল ফোনের প্রযুক্তিকে ব্যবহার করে এসএমএস-এর মাধ্যমে এবং কণ্ঠস্বরে প্রথমবারের মতো সার্বক্ষণিক খবর প্রচার ও স¤প্রচার করে বাংলাদেশে নতুন এই মাধ্যমটির সম্ভাবনার আবিষ্কর্তা বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম। বড় খবর হলেই দেশ-বিদেশে যেখানেই থাকেন গ্রাহক মোবাইল ফোনে পেয়ে যান তাৎক্ষণিক। প্রশিক্ষিত একদল সংবাদ ও সম্প্রচারকর্মী গ্রাহকদের সার্বক্ষণিক এই সেবায় নিয়োজিত।
বাংলাদেশের মানুষকে অনেক নতুনের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেওয়া বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম আরো নতুনের অঙ্গীকার নিয়ে উদযাপন করছে প্রতিষ্ঠানের পাঁচ বছর।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম/এমআই/১১৪০ ঘ.