ক্যাটেগরিঃ bdnews24

 

ঢাকা, জানুয়ারি ১০ (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)- সংসদে গিয়ে নিজেদের দাবি তুলে ধরার জন্য প্রধান বিরোধী দলের প্রতি আবারো আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও স্থানীয় সরকার মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম।

বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে মঙ্গলবার সকালে ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদনের পর আশরাফ বলেন, “আশা করি উনার (খালেদা জিয়া) যে বক্তব্য তা তিনি সংসদের সামনেই উত্থাপন করবেন।”

“সংবিধান যদি সংশোধন করার প্রয়োজন হয়, নতুন আইন করার যদি প্রয়োজন হয়- তার একমাত্র স্থান হলো সংসদ”, যোগ করেন আশরাফ।

সরকার বিএনপির অনুপস্থিতিতে সংবিধানের পঞ্চদশ সংশোধনীর মাধ্যমে তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা বিলুপ্ত করার পর থেকে দলটি সমমনাদের নিয়ে আন্দোলন চালিয়ে আসছে।

বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া বলেছেন, আগামী জাতীয় নির্বাচন দলীয় সরকারের অধীনে হলে তাতে তার দল অংশ নেবে না।

বর্তমান সরকারের পতন ঘটাতে সোমবার চট্টগ্রামে এক জনসভা থেকে ঢাকা চলো কর্মসূচি ঘোষণা করেন খালেদা জিয়া, যা চূড়ান্ত রূপ পাবে ১২ মার্চ ঢাকায় মহাসমাবেশের মধ্য দিয়ে।

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নেতারা বলে আসছেন, বিএনপির দাবিগুলো সংসদে এসেই তুলে ধরা উচিৎ।

মঙ্গলবার সকালে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার শ্রদ্ধা নিবেদনের মধ্য দিয়ে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে আওয়ামী লীগের কর্মসূচি শুরু হয়।

শেখ হাসিনা প্রথমে সরকার প্রধান হিসাবে মন্ত্রিসভার সদস্যদের নিয়ে জাতির জনকের প্রতিকৃতিতে ফুল দেন। এরপর আওয়ামী লীগ সভনেত্রী হিসাবে দলের কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে নিয়ে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দেন তিনি।

পরে, আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠনসহ বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জানায়।

স্বাধীনতা যুদ্ধে চূড়ান্ত বিজয়ের পর ১৯৭২ সালের এ দিন পাকিস্তানের বন্দিদশা থেকে মুক্ত হয়ে দেশে ফেরেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।

১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ বঙ্গবন্ধুকে তার ধানমন্ডির ৩২ নম্বর সড়কের বাসভবন থেকে পাকিস্তানি সেনারা আটক করে তৎকালীন পশ্চিম পাকিস্তানে নিয়ে যায়। ওই রাতেই বাংলাদেশের নিরস্ত্র মানুষের ওপর হামলা শুরু করে পাকিস্তানি সেনাবাহিনী।

যুদ্ধে পরাজয়ের পর পাকিস্তান সরকার বিশ¡ জনমতের চাপে ১৯৭২ সালের ৮ জানুয়ারি মুক্তি দিতে বাধ্য হয় বঙ্গবন্ধুকে। মুক্তির পর পাকিস্তান থেকে লন্ডন ও দিল্লি হয়ে ১০ জানুয়ারি ঢাকায় পৌঁছান তিনি।

সেই থেকে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ দিনটিকে বঙ্গবন্ধুর ‘স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস’ হিসেবে পালন করে আসছে।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম/এসইউএম/জেকে/১১১৬ ঘ.