ক্যাটেগরিঃ bdnews24

ঢাকা, মার্চ ১২ (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)- রাজধানীর বিভিন্ন স্থান থেকে নয়া পল্টনে মহাসমাবেশে আসার পথে মোড়ে মোড়ে পুলিশের বাধা সত্ত্বেও সমাবেশের বিস্তার বেঁধে দেওয়া এলাকা ছাড়িয়ে গেছে।

বিএনপি ও জামায়াতে ইসলামীর নেতা-কর্মীরা সকাল থেকেই মিছিল নিয়ে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের দিকে আসতে শুরু করেন। তবে কারওয়ান বাজার, মগবাজার, বাবুবাজার ও মতিঝিলসহ বিভিন্ন স্থানে পুলিশ মিছিলকারীদের বাধা দেয়।

আমাদের প্রতিবেদকরা ঘটনাস্থল থেকে জানান, বাধার পরও বেলা ১২টার মধ্যে মতিঝিল এজিবি কলোনি ও পশ্চিমে কাকরাইল মোড় পর্যন্ত এলাকা ছাড়িয়ে যায় জনসমাবেশ।

এই মহাসমাশের অনুমতি দেওয়ার ক্ষেত্রে পুলিশের বেঁধে দেওয়া শর্তে বলা হয়েছিল, পূর্ব দিকে ফকিরাপুল এবং পশ্চিম দিকে নাইটিঙ্গেল মোড় পর্যন্ত এলাকায় লোক জমায়েত হতে পারবে।

বিএনপি নেতারা জানান, দুপুর ২টায় সমাবেশের কার্যক্রম আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হবে। বিরোধী দলীয় নেতা ও বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া মহাসমাবেশ থেকে সরকারবিরোধী নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ফকিরেরপুল থেকে কাকরাইলের নাইটিঙ্গল মোড় পর্যন্ত ১০টি বড় পর্দা বসানো হয়েছে। লাগানো হয়েছে শতাধিক মাইক। মঞ্চে জাতীয়তাবাদী সামাজিক সাংস্কৃতিক সংস্থা-জাসাস এর শিল্পীরা মুক্তিযুদ্ধের গান ও দলীয় সঙ্গীত পরিবেশন করছে।

মহানগর আহবায়ক ও দলের সহসভাপতি সাদেক হোসেন খোকা বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, ‘‘সরকারের নানা বাধার পরও ঢাকা শহর মানুষের সয়লাব হয়ে যাবে বলে আমরা বিশ্বাস করি।’’

মূল মঞ্চের চারপাশে দলীয়ভাবে নিরাপত্তা ব্যবস্থা বসানো হয়। দলের কেন্দ্রীয় নেতাসহ নির্বাহী কমিটির সদস্যদের জন্য মঞ্চের নিচে পশ্চিম দিকে আলাদাভাবে বসার স্থান সংরক্ষিত রাখা আছে।

সমাবেশের শান্তি রক্ষার জন্য ১০ হাজার জনের একটি স্বেচ্ছাসেবক দল গঠন করা হয়েছে। যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দল, ছাত্র দল, শ্রমিক দল, মৎস্যজীবী দল ও উলামা দলের নেতা-কর্মীদের নিয়ে এই দল গঠন করা হয়। তাদের নির্দিষ্টভাবে বিভিন্ন স্থানে নিরাপত্তা রক্ষার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। স্বেচ্ছাসেবক দলের সদস্যরা হলুদ ও সবুজ গেঞ্জী ও লাল টুপি মাথায় দিয়ে দায়িত্ব পালন করছেন।

বিএনপি সমর্থক চিকিৎসকদের সংগঠন ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ-ড্যাব চিকিৎসা শিবির স্থাপন করেছে নয়া পল্টনে দলীয় কার্যালয়ের সামনে।

মহাসমাবেশ ঘিরে পুলিশ, র‌্যাব ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়েছে। নয়া পল্টন, ফকিরেরপুল, বিজয়নগরসহ সবগুলো অলি-গলিতে পুলিশের নিরাপত্তা চৌকি বসানো হয়। উঁচু দালানগুলোতে পুলিশি পাহারা বসানো হয়েছে। মঞ্চের চার পাশে দুই স্তরের পুলিশি নিরাপত্তা বসানো হয়েছে।

পুরো এলাকা ব্যানার, ফেষ্টুন ও ডিজিটাল ব্যানারে ছেয়ে গেছে। প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান, খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের বড় বড় প্রতিকৃতিও টানানো হয়েছে।

‘ঢাকা চলো’ শ্লোগান লেখা বড় বড় বেলুন উড়ানো হয়েছে।

মঞ্চের ব্যানারে লেখা আছে- ‘নিদর্লীয় নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকার পুর্নবহাল ও অযোগ্য-তাঁবেদার সরকারের পদত্যাগের দাবিতে চার দলীয় জোট ও সমমনা দলের উদ্যোগে মহাসমাবেশ।’

জিয়াউর রহমান, খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের ছবিও রয়েছে ব্যানারে।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম/এসএম/এলএইচ/আরবি/জেকে/১২১৩ ঘ.