ক্যাটেগরিঃ bdnews24

 

ঢাকা, মার্চ ০৩ (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)- গ্রামীণ ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালকের পদ থেকে অপসারণের আদেশের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে রিট আবেদন করেছেন মুহাম্মদ ইউনূস।

বৃহস্পতিবার সকালে হাইকোর্টের বিচারপতি মো. মমতাজউদ্দিন আহমেদ ও বিচারপতি গোবিন্দ চন্দ্র ঠাকুরের বেঞ্চে আবেদনটি দায়ের করা হয়েছে। দুপুরে এর ওপর শুনানি হতে পারে।

বুধবার কেন্দ্রীয় ব্যাংক অপসারণের আদেশ জারির পর নোবেল বিজয়ী একমাত্র বাংলাদেশি এর বিরুদ্ধে আইনি লড়াই চালানোর ঘোষণা দেন।

বুধবার রাতেই তিনি ড. কামাল হোসেনের বাড়িতে যান। তখন তিনি সাংবাদিকদের বলেন, “এটি (অপসারণ) একটি আইনগত বিষয়। আইনগতভাবে কীভাবে তা মোকাবেলা করা যায়, সে সম্পর্কে পরামর্শ করতে এসেছি।”

বৃহস্পতিবার সকাল সোয়া ১০টার দিকে হাইকোর্টে উপস্থিত হন ইউনূস। তিনি ড. কামাল হোসেনের চেম্বারে রয়েছেন। তবে সাংবাদিকদের সঙ্গে কোনো কথা বলেননি তিনি।

সকাল পৌনে ১১টার দিকে কামাল হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, “আমরা রিট আবেদন দায়েরের অনুমতি নিয়েছি। আবেদন করার প্রক্রিয়া চলছে।”

ড. কামালের চেম্বারের আইনজীবী রমজান আলী সকাল সোয়া ১১টার দিকে সাংবাদিকদের বলেন, “রিট আবেদন হয়েছে। দুপুরের পর এর ওপর শুনানি হতে পারে।”

ইউনূস ব্যক্তিগতভাবে রিট আবেদনটি দায়ের করেছেন। তার পক্ষে আইনজীবী রয়েছেন সারা হোসেন।

কেন্দ্রীয় ব্যাংক বলছে, ইউনূসকে শেষবার গ্রামীণ ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নিয়োগ দেওয়ার ক্ষেত্রে আইন অনুযায়ী বাংলাদেশ ব্যাংকের অনুমোদন নেওয়া হয়নি।

এ কারণেই বাংলাদেশ ব্যাংক তাকে অপসারণের আদেশ দিয়েছে বলে জানিয়েছেন গ্রামীণ ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হক।

তবে গ্রামীণ ব্যাংকের পক্ষ থেকে প্রতিষ্ঠানটির মহাব্যবস্থাপক (তথ্য ও গণমাধ্যম সমন্বয়) জান্নাত-ই-কাওনাইন বুধবার এক লিখিত বক্তব্যে বলেন, “গ্রামীণ ব্যাংক ব্যবস্থাপনা পরিচালকের নিয়োগ সংক্রান্ত আইনসমুহ যথাযথভাবে পালন করেছে। ব্যাংকের আইন পরামর্শদাতাদের মতে, গ্রামীণ ব্যাংকের প্রতিষ্ঠাতা নোবেল বিজয়ী প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূস যথারীতি তার পদে বহাল আছেন।”

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম/এসএন/এমআই/১১৪৫ ঘ.