ক্যাটেগরিঃ bdnews24

ঢাকা, মার্চ ০৪ (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)- মুহাম্মদ ইউনূসকে গ্রামীণ ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালকের পদ থেকে অপসারণ যুক্তরাষ্ট্র ভালোভাবে না নিলেও কূটনৈতিক সম্পর্কে তার প্রভাব পড়বে না বলেই মনে করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী দীপু মনি।

তিনি শুক্রবার তার কার্যালয়ে সাংবাদিকদের বলেন, “আমাদের (ঢাকা-ওয়াশিংটন) মধ্যে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক রয়েছে। বাংলাদেশ সরকারের আইনগত কোনো পদক্ষেপের কারণে সম্পর্ক নেতিবাচক দিকে যাওয়াটা যুক্তিযুক্ত নয়।”

ঢাকায় যুক্তরাষ্ট্রের দূত জেমস এফ মরিয়ার্টির মন্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় পররাষ্ট্রমন্ত্রীর এ বক্তব্য। মরিয়ার্টি বৃহস্পতিবার অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করার পর সাংবাদিকদের বলেছিলেন, ড. ইউনূসকে অপসারণের প্রক্রিয়ায় তার দেশের সরকার বিচলিত।

নোবেল বিজয়ী ইউনূসকে গ্রামীণ ব্যাংকের পরিচালকের পদ থেকে অপসারণ করে গত বুধবারই আদেশ জারি করে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। বিষয়টি সারাবিশ্বে সংবাদ মাধ্যমের শিরোনাম হয়ে উঠে আসে।

আন্তর্জাতিক প্রতিক্রিয়ার বিষয়ে দীপু মনি বলেন, “তিনি এক জন আন্তর্জাতিক ব্যক্তিত্ব। তাই প্রতিক্রিয়া আসতেই পারে। আমরাও তো আন্তর্জাতিক বিভিন্ন বিষয়ে মতামত দিয়ে থাকি।”

“স্বাধীন দেশ হিসাবে আইন মেনে বাংলাদেশের যে কোনো সঠিক সিদ্ধান্ত নেয়ার অধিকার রয়েছে। তবে অন্যদের ভিন্ন মত থাকতেই পারে”, বলেন তিনি।
যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিনটনের সঙ্গে আগামী ৮ মার্চ ইউনূস বৈঠক করছেন বলে সংবাদ মাধ্যমে খবর প্রকাশ হয়েছে।

এ বিষয়ে দীপু মনি বলেন, “তারা দীর্ঘদিন ধরে একে অপরের বন্ধু। তারা সাক্ষাৎ করতেই পারেন। এ বিষয়ে আমার কোনো মন্তব্য করা সমীচীন হবে না।”

ক্লিনটন পরিবারের সঙ্গে ইউনূসের ঘনিষ্ঠতা দীর্ঘদিনের। ফার্স্টলেডি থাকা অবস্থায় ইউনূসের আমন্ত্রণে বাংলাদেশ সফরেও এসেছিলেন হিলারি।

ইউনূসের বিষয়ে সরকারের পদক্ষেপের ব্যাখ্যায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, গ্রামীণ ব্যাংক একটি বিধিবদ্ধ প্রতিষ্ঠান এবং এখানে সরকারের অংশীদারিত্ব রয়েছে।

“এ ধরনের প্রতিষ্ঠানের বিষয়ে সরকারের একটি দায়িত্ব রয়েছে”, বলেন তিনি।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম/এসএসজেড/আরএম/এমআই/১৫১০ ঘ.