ক্যাটেগরিঃ bdnews24

ঢাকা, মার্চ ০৫ (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)- মুহাম্মদ ইউনূসকে ব্যবস্থাপনা পরিচালকের পদ থেকে অপসারণ গ্রামীণ ব্যাংককে ধ্বংসের ‘ষড়যন্ত্র’ বলে মনে করছেন বিএনপি নেতা মওদুদ আহমদ।

তিনি শনিবার এক আলোচনা সভায় বলেছেন, “সরকার ভারসাম্য হারিয়ে ফেলেছে। গ্রামীণ ব্যাংক ধ্বংস করার জন্য নোবেল বিজয়ী অধ্যাপক ইউনূসের বিরুদ্ধে এ ষড়যন্ত্র হয়েছে। উদ্দেশ্য প্রতিষ্ঠানটিকে নিয়ন্ত্রণ করা।”

গ্রামীণ ব্যাংকের প্রতিষ্ঠাতা ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইউনূসকে গত বুধবার অপসারণের আদেশ দেয় কেন্দ্রীয় ব্যাংক। বাংলাদেশ ব্যাংকের অনুমোদন না নিয়ে সর্বশেষ মেয়াদে ইউনূসকে নিয়োগ দেওয়ায় তাকে অপসারণ ছাড়া কোনো উপায় ছিলো না বলে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন।

তবে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের এ আদেশের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে রিট আবেদন করেছেন ইউনূস। গ্রামীণ ব্যাংকও বলছে, তার নিয়োগে আইনের কোনো ব্যত্যয় ঘটেনি।

গ্রামীণ ব্যাংকে সরকারের ২৫ শতাংশ মালিকানা রয়েছে, যদিও শুরুতে তা ছিলেঅ ৬০ শতাংশ।

গ্রামীণ ব্যাংকের ওপর সরকারের পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণ এলে প্রতিষ্ঠানটি ক্ষতিগ্রস্ত হবে বলে মনে করেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ।

জাতীয় প্রেসক্লাবের ওই আলোচনা সভায় তিনি বলেন, “এতে গরিব ও গ্রামীণ নারীরা ক্ষতিগ্রস্ত হবে।”

ইউনূসকে অপসারণের প্রতিবাদ জানিয়ে মওদুদ বলেন, “ইউনূস বিশ্ববাসীর কাছে সম্মানিত ব্যক্তিত্ব। তার ক্ষুদ্রঋণ দর্শন নিয়ে এখন হার্ভার্ড, কেমব্রিজসহ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে গবেষণা হচ্ছে। তাকে অসম্মান করে জাতিকে অপমানিত করা হয়েছে।”

জাতীয়তাবাদী সাংস্কৃতিক ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে ওই আলোচনা সভায় সরকারের বিভিন্ন কার্যক্রমের সমালোচনা করেন বিএনপি নেতা।

সা¤প্রতিক ঘটনাবলি তুলে ধরে মওদুদ বলেন, “দেশে এক অস্বাভাবিক অবস্থা বিরাজ করছে। সীমান্তে ফেলানী হত্যাকাণ্ড, পুঁজিবাজারের ধস, অধ্যাপক ইউনূস-এসব কর্মকাণ্ডে সরকারের ভূমিকা দেখে মনে হচ্ছে, সরকার ভারসাম্য হারিয়ে ফেলেছে।”

“সরকারের মদদপুষ্ট একটি ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী গোষ্ঠী ৮৫ হাজার বিনিয়োগকারীর অর্থ সরিয়ে নিয়েছে। অথচ সরকার এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়নি”, বলেন তিনি।

সংবিধান পুণর্মুদ্রণ প্রসঙ্গে সাবেক আইনমন্ত্রী মওদুদ বলেন, “এর কোনো কার্যকারিতা নেই। এটি মূল্যহীন। সংবিধান সংশোধন করতে হলে সংসদে যেতে হবে। পুনর্মুদ্রিত সংবিধান বাংলাদেশের সংবিধান নয়।”

‘প্রতিহিংসার রাজনীতি ও বাংলাদেশের গণতন্ত্রের ভবিষ্যৎ’ শীর্ষক ওই সভায় মওদুদ ছাড়াও আলোচনা করেন বিএনপির স্বনির্ভর বিষয়ক সম্পাদক রুহুল কুুদ্দুস তালুকদার দুলু, যুবদল সভাপতি সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন, সংসদ সদস্য জেড আই মোস্তফা আলী, রেজাবুদ্দৌলা চৌধুরী প্রমুখ।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম/এসএম/এমআই/১৪২৪ ঘ.