ক্যাটেগরিঃ bdnews24

 

ঢাকা, এপ্রিল ২৬ (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)- বিএনপির ‘নিখোঁজ’ সাংগঠনিক সম্পাদক ইলিয়াস আলীকে শনিবারের মধ্যে ’পাওয়া’ না গেলে পরদিন থেকে বিরোধী জোট আবার টানা হরতাল করবে বলে জানিয়েছেন এর নেতারা।

জোটের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন নেতা জানান, হরতালের দিন-তারিখ ঘোষণা করা না হলেও বুধবার এক বৈঠকে আনুষ্ঠানিকভাবেই জানানো হয়েছে যে, ‘কঠোর’ কর্মসূচি দেওয়া হবে।

রাতে বিএনপির নেতৃত্বাধীন ‘১৮ দলীয় জোটের’ বৈঠকে ‘কঠোর কর্মসূচি’র জন্য সর্বাত্মক প্রস্তুতি নেওয়ার নির্দেশ দেন খালেদা জিয়া। বৈঠকটি হয় খালেদার গুলশান কার্যালয়ে।

এতে আন্দোলন জোরদার করতে অবিলম্বে জেলা-উপজেলা-থানা-পৌরসভা-ইউনিয়ন-ওয়ার্ড পর্যায়ে জোটের সংগ্রাম কমিটি গঠনের কাজ শুরু করার নির্দেশও দেন বিএনপি চেয়ারপার্সন।

বৈঠকের পর জোটের অন্যতম শরিক লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির অবসরপ্রাপ্ত কর্নেল অলি আহমেদ সাংবাদিকদের বলেন, “নিখোঁজ ইলিয়াস আলীকে ফেরত দেওয়ার দাবিতে ঘোষিত কর্মসূচি নিয়ে জোট নেত্রী আমাদের সঙ্গে আলোচনা করেছেন।

“শনিবারের মধ্যে তাকেসহ গাড়িচালককে সরকার ফেরত না দিলে আগামী সপ্তাহে যে কঠোর কর্মসূচি নেত্রী ঘোষণা করবেন, তাতেও ১৮ দলীয় জোট মাঠে থাকবে।’’

বৃৃহস্পতিবার ও শনিবারের বিক্ষোভ কর্মসূচিও ১৮ দলীয় জোট বিএনপির সঙ্গে পালন করবে বলে জানান তিনি।

বুধবার সকালে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এক সমাবেশে বলেন, “ইলিয়াসকে ফেরত দেওয়া না হলে রোববার থেকে দেশে যে আগুন জ্বলবে সে আগুন নেভানোর শক্তি সরকারের থাকবে না।”

রাতের বৈঠকের পর খালেদা জিয়ার প্রেস সচিব মারুফ কামাল খান বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “বুধবার সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে বিরোধীদলীয় নেতা ও জোট নেত্রী খালেদা জিয়া যে বক্তব্য ও কর্মসূচি ঘোষণা করেছেন, তার সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করেছেন ১৮ দলীয় জোটের শরিক নেতারা।

“তারা বলেছেন, ইলিয়াস আলীকে ফেরত আনতে চলমান আন্দোলন অব্যাহত রাখা ছাড়া অন্য কোনো বিকল্প নেই।”

খালেদা জিয়ার সভাপতিত্বে দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি (এলডিপি) সভাপতি অলি আহমেদ, জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুল রহমান, বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি (বিজেপি) চেয়ারম্যান আন্দালিব রহমান পার্থ, কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম, খেলাফত মজলিশের চেয়ারম্যান মাওলানা মুহাম্মদ ইসহাক, ঐক্যজোটের মহাসচিব আবদুল লতিফ নেজামী, ন্যাশনাল পিপপলস পার্টি-এনপিপি চেয়ারম্যান শেখ শওকত হোসেন নিলু, ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টি-এনডিপি সভাপতি খন্দকার গোলাম মূর্তজা, বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-ন্যাপ সভাপতি জেবেল রহমান গানি, মুসলিম লীগের নির্বাহী সভাপতি এ এইচ এম কামরুজ্জামান খাঁন, ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-ন্যাপ ভাসানীর সভাপতি শেখ আনোয়ারুল হক, জাতীয় লেবার পার্টির চেয়ারম্যান মোস্তফিজুর রহমান ইরান, ডেমোক্রেটিক লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুদ্দিন মনি, জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টির সাধারণ সম্পাদক শেখ লুৎফর রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

গত ১৮ এপ্রিল ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশন মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে মাধ্যমে এই জোটের আত্মপ্রকাশ ঘটে। এটি খালেদা জিয়ার সঙ্গে জোটের দ্বিতীয় বৈঠক।

গত ১৭ এপ্রিল মধ্যরাত থেকে ইলিয়াস ও তার গাড়ির চালক আনসারী আলী নিখোঁজ- এ অভিযোগে ইলিয়াসের স্ত্রী থানায় জিডি এবং হাই কোর্টে রিট করেছেন। ওই রাতেই বিএনপির এ নেতার গাড়িটি তার বনানীর বাসার কাছে আমতলী থেকে পরিত্যক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে পুলিশ।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম/এসএম/পিডি/০০১০ ঘ.