ক্যাটেগরিঃ bdnews24


ঢাকা, মে ২৮ (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)- কার্যালয়ের সামনে একদল সন্ত্রাসীর হামলার শিকার হয়েছেন বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম কর্মীরা।

সোমবার রাতে মহাখালীর আমতলী এলাকায় এই হামলা হয়।

সন্ত্রাসীদের ছুরিকাঘাতে আহত সহসম্পাদক রিফাত নওয়াজ, প্রতিবেদক সালাউদ্দিন ওয়াহিদ প্রীতম এবং অফিস সহকারী রুহুল আমিনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আমতলীর বন ভবনের পাশেই ৯৯ মহাখালীর পঞ্চম তলায় বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের বার্তাকক্ষ। এর নিচ তলায়ই সন্ত্রাসীরা কর্মীদের ওপর হামলা চালায়। তারা রিফাত ও প্রীতমের পায়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কোপায়।

তাদের সঙ্গে অফিস সহকারী রুহুল আমিনকেও গুলশানের ইউনাইটেড হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তাদের অবস্থা আশঙ্কামুক্ত বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন।

ইন্টারনেটভিত্তিক সংবাদপত্র ও সংবাদ সংস্থা বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের নতুন কার্যালয়ে যাওয়ার প্রস্তুতি হিসেবে অফিস সহকারী রুহুল আমিন নিচে অবস্থানকালে রাত ৯টা থেকে সোয়া ৯টার মধ্যে এক সন্ত্রাসী তার ওপর হামলা চালায়।

রুহুল আমিনের ছুরিকাঘাতের কথা শুনে কার্যালয়ে দায়িত্বরত সাংবাদিকরা নিচে গিয়ে ওই সন্ত্রাসীকে আটকে পুলিশে খবর দিলে তার সঙ্গীরা জড়ো হয়ে অস্ত্র-শস্ত্র নিয়ে সাংবাদিকদের ওপর হামলা চালায়।

সন্ত্রাসীরা কার্যালয়ের নিচ তলার শাটার খুলে সাংবাদিকদের ওপর হামলা চালালে প্রতিষ্ঠানের আরো কয়েকজন কর্মীও আঘাত পান। এ সময় সোহাগ মিয়াসহ অফিস সহকারীদেরও পেটায় সন্ত্রাসীরা।

কার্যালয়ের বাইরে রাখা সাংবাদিকদের গাড়ি ও মোটরসাইকেলও ভাংচুর করা হয় এ সময়।

ঘটনার কিছুক্ষণ পর র‌্যাব ও পুলিশ বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম কার্যালয়ে পৌঁছায়। মহানগর পুলিশের উপ কমিশনার (গুলশান বিভাগ) লুৎফুল কবির ঘটনাস্থলে সাংবাদিকদের বলেন, কারা এ হামলা চালিয়েছে তা এখনো পরিষ্কার নয়।

“ডিএমপির কয়েকটি দল বিভিন্ন অঞ্চলে পাঠানো হয়েছে, ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের খুঁজে বের করতে”, যোগ করেন তিনি।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের বার্তা সম্পাদক গাজী নাসির উদ্দিন বলেন, “আমরা এ ঘটনায় স্তম্ভিত। আমরা অবিলম্বে হামলাকারীদের গ্রেপ্তার করে বিচারের দাবি জানাচ্ছি।”

ইউনাইটেড হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা. বায়েজিদ বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, রিফাত ও প্রীতমের দুই উরুতে দুটি করে ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে।

“এতে বড় ধরনের ক্ষত সৃষ্টি হয়েছে। প্রত্যেক ক্ষততেই চার পাঁচটি করে সেলাই লেগেছে। তবে তারা আশঙ্কামুক্ত”, বলেন তিনি।

এছাড়া রুহুল আমীনের মাথায় আঘাত লেগেছে এবং চোয়াল ফুলে ও রক্তাক্ত হয়ে গেছে বলেও জানান তিনি।

রুহুল আমীনের গায়েও ছুরির আঘাতের চিহ্ন রয়েছে বলে এই চিকিৎসক জানান।
আহত সংবাদ কর্মীদের দেখতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুন, তথ্যমন্ত্রী আবুল কালাম আজাদ ও আইন প্রতিমন্ত্রী কামরুল ইসলাম রাতেই গুলশানের ইউনাইটেড হাসপাতালে যান।

বিরোধী দলীয় নেতা খালেদা জিয়া এই হামলার ঘটনার নিন্দা জানিয়েছেন।

এছাড়া সারা দেশে সাংবাদিকদের বিভিন্ন সংগঠন এর নিন্দা জানানোর পাশাপাশি হামলাকারীদের গ্রেপ্তার ও বিচার দাবিতে মানববন্ধনসহ বিভিন্ন কর্মসূচি ঘোষণা করেছে।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম/এমআই/০০২৫ ঘ.