ক্যাটেগরিঃ bdnews24


ঢাকা, মে ৩০ (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)- বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের সাংবাদিকদের ওপর হামলায় জড়িত অভিযোগে আরো দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব।

এ নিয়ে সোমবারের ওই হামলায় জড়িত মোট পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করা হলো। ঘটনার কয়েক ঘণ্টার মধ্যে গ্রেপ্তার তিনজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য চারদিনের হেফাজতে ইতোমধ্যে পেয়েছে পুলিশ।

র‌্যাব-১ এর একটি দল বুধবার মধ্যরাতে সাভারে অভিযান চালিয়ে ইমরান ও ইয়াহিয়া নামে দুই যুবককে গ্রেপ্তার করে বলে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানিয়েছেন র‌্যাবের পরিচালক (মিডিয়া) এম সোহায়েল।

মহাখালী এলাকার বাসিন্দা এই দুই যুবক হামলায় জড়িত থাকার কথা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছে বলে জানান তিনি।

এম সোহায়েল বলেন, “কীভাবে হামলা হয়েছে, কীভাবে ছুরিকাঘাত হয়েছে, সব কিছুরই বর্ণনা দিয়েছে দুজন।”

ইমরান ও ইয়াহিয়া মহাখালী এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী বলে র‌্যাব কর্মকর্তারা জানান। বৃহস্পতিবার তাদের সাংবাদিকদের সামনে হাজির করা হবে বলেও জানানো হয়েছে।

এর আগে গ্রেপ্তার জাহেদুল ইসলাম সৌরভ গোয়েন্দা পুলিশের সদর দপ্তরে সাংবাদিকদের কাছে ইমরানের নাম বলেছিলেন।

জাহেদুলসহ আগে গ্রেপ্তার তিনজনকে বুধবার ঢাকার আদালতে হাজির করা হলে মহানগর হাকিম মো. এরফান উল্লাহ তাদের চারদিনের পুলিশ হেফাজতে পাঠান। অন্য দুজন হলেন ইলিয়াস মাস্টার সুমন ও মীর হোসেন।

হামলায় জড়িত অনেকের পরিচয় সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া গেছে বলে আগেই জানিয়েছিলেন পুলিশ কর্মকর্তা উপপরিদর্শক মুহাম্মদ ইমদাদুল ইসলাম। তাদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে বলেও বুধবার দুপুরে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান তিনি।

তখন তিনি বলেছিলেন, চিহ্নিত কয়েকজন হামলাকারীকে গ্রেপ্তারে রাজধানীর বাইরেও অভিযান চালানো হচ্ছে।

গত ২৮ মে রাতে মহাখালীর আমতলীতে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম কার্যালয়ের নিচে একদল যুবক অস্ত্র-শস্ত্র নিয়ে এই অনলাইন সংবাদপত্রের সাংবাদিকদের ওপর হামলা চালায়।

এতে ছুরিকাঘাতে গুরুতর আহত হন সহ সম্পাদক নেওয়াজ মোহাম্মদ রিফাত, প্রতিবেদক সালাহউদ্দিন ওয়াহেদ প্রীতম এবং অফিস সহকারী রুহুল আমিন। এছাড়াও আহত হন সাংবাদিকসহ অন্তত ১০ জন।

ঘটনার পরদিন মামলা হয়। এরমধ্যেই মহাখালী এলাকা থেকে জাহেদুল, সুমন ও মীর হোসেনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। জাহেদুল হামলায় জড়িত থাকার কথা ইতোমধ্যে স্বীকার করেছেন। তিনি বলেছেন,

হামলায় আহত রিফাত, প্রীতম এবং রুহুল আমিন রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। প্রচুর রক্তক্ষরণের কারণে প্রীতমকে বুধবারও রক্ত দিতে হয়েছে।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের কর্মীদের ওপর হামলার ঘটনায় সারাদেশে বিক্ষোভ, মানববন্ধনসহ নানা কর্মসূচি পালন করছেন সংবাদ কর্মীরা। বুধবারও বিভিন্ন জেলায় কর্মসূচি পালিত হয়।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম/এলএইচ/এমআই/০০২৫ ঘ.