ক্যাটেগরিঃ ক্যাম্পাস

 

জগন্নাথ বিশ্ববিশ্ববিদ্যালয় আমাদের ২য় প্রজন্মের আবাস স্থল। আমরা জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়কে নিজের মায়ের মত ভালবাসি। নিজের মা যদি কোন কষ্ট পায় বা নিজের মাকে যখন কেউ আঘাত করে তখন আমরা যেমন ব্যথা পাই তেমনি জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় যখন কোন চক্রান্তকারিদের শিকারে পরিনত হয় আমরা তখন সেরকম ব্যাথা পাই। জগন্নাথ আজ সমুহ সমস্যার মুখোমুখি। দেশের এক মহল চায় জগন্নাতকে দমিয়ে রাখতে। তারা চায় জগন্নাথকে একটি পাবলিক প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিনত করতে। তারা আমাদের উপর ২৭/৪ ধারা চাপিযে দিয়ে আমাদেরকে দমিয়ে রাখতে চায়। আমাদের আর কত দমাবে!

একটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় নেই তার কোন হল! নেই লাইব্রেরির পযাপ্ত সুযোগসুবিধা! নেই ভাল একটি ক্যান্টিন! নেই যাতায়াতের জন্য চাহিদা সাপেক্ষে যানবাহন! নেই কোন ল্যাব! নেই প্রয়োজন অনুসারে ক্লাস রুম! নেই বন্ধুকে নিয়ে আড্ডা দেওয়ার মত ক্যাম্পাস! তারপরও গত কয়েক দিন ধরে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে সাধারন শিক্ষাথীরা ২৭/৪ ধারা বাতিলসহ আবাসিক ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে দফায় দফায় আন্দোলন করেছে। কিন্তু এত আন্দোলন, এত বিক্ষোভের পরও সরকার কোন পদক্ষেপ নেইনি। তারা শুধু আশ্বাসের বাণী শুনিয়ে যাচ্ছে। তারা একটি দেশের সংবিধান বারবার পরিবর্তন করতে পারে কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি মাত্র আইন পরিবর্তন করতে কিসের এত অসুবিধা? নাকি তারা চায় না জগন্নাথ পুরোপুরি একটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের সুযোগসুবিধা পাক? নাকি তারা শিক্ষা নিয়ে বানিজ্য করতে চায়?

সরকারকে মনে রাখা উচিৎ এই শিক্ষাথীরা একদিন ভোটের অধিকার পাবে। পাবে তাদের মতামত যাচাইয়ের জন্য ব্যালট পেপার। তারা কিন্তু সেদিন জবাবটা ভাল করে দিতে ভুলবে না!