ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

 

তদন্ত একটা তাৎপর্যপূর্ণ জিনিস। তার কোন রং নেই তার কোন পরিমাপ করার উপায় নেই। তবে সেটা চলে। কোথায় গিয়ে থামে, কোথায় গিয়ে দাঁড়ায় সেটা আমাদের মতো সাধারণ মানুষের সীমানার বাইরে। অন্যদিকে তদন্তের একটা ফলাফল থাকে সেটা কোন গ্রেড পেল আর কি ফলাফল করা হলো সেটা সাধারণ মানুষের সীমানার বাইরে। তাই এই সোনার বাংলায় জন্ম নিয়ে বহু তদন্ত চোখের সামনে দিয়ে গিয়েছে। কিছু তদন্ত শুধু চলতেই থাকে বা সেগুলো আদৌও শেষ হয়েছে কিনা সেটা সৃষ্টিকর্তাই হয়ত ভালো জানেন।

1aa093181eda5d212af114d22124efe5-584e52822f6c0

পুলিশ জনগণের নিরাপত্তা দেয়। পুলিশের জনগণের নিরাপত্তা দেওয়ার দায়িত্ব। তবে সেই পুলিশ এবার সাঁওতালদের ঘরে আগুন দিয়েছে। যার চোখে কোন কিছু দেখার সামর্থ্য আছে অন্তত সে দেখেছে ভিডিওতে। এটি দেখে সাধারণ মানুষ আঁতকে উঠেছে, ভয়ে প্রকম্পকিত হয়েছে। তবে এটির তদন্ত কারার জন্য ঐ জেলার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটকে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। সেটার জন্য ১৫ দিন সময় দেওয়া হয়েছে। তবে এই তদন্ত রিপোর্ট জানার জন্য হয়ত কেউ বসে নেই। সাধারণ মানুষ তদন্ত রিপোর্ট হয়ত তার ট্যাব, মোবাইল ও কম্পিউটার এ নিয়ে বসে আছে। কেউ কেউ বলছে এই রিপোর্ট দেওয়ার জন্য এত সময় দরকার হয় না। তবে রিপোর্ট কি দিবে সেটা বড় কর্তাদের কম ঘাম ঝরবে বলে মনে হয় না।

সাঁওতালদের ঘরবাড়িতে আগুন দেওয়া পুলিশের জন্য সর্বকালের ঘৃণিত কাজ। একটা রাষ্ট্রের পোশাক পরে ঘরবাড়িতে আগুন দেওয়া কম কথা নয়। যাকে রাষ্ট্রের সেবা করার জন্য নিয়োগ দেওয়া হয়। তাহলে কি মানুষ প্রশাসন থেকে বিছিন্ন হয়ে পড়বে? পুলিশের প্রতি কি সম্পূর্ণ বিশ্বাস হারাবে সেটা প্রশ্ন থেকে যায় বারবার। মানুষ কি তাহলে গণমাধ্যমের প্রতি বিশ্বাস স্থাপন করবে। নিজের নিরাপত্তার জন্য গণমাধ্যমের অফিসে গিয়ে সাহায্য চাইবে। দেশের অন্যতম গণমাধ্যম বাংলা ট্রিবিউনে সাঁওতালদের বাড়িতে আগুন দেওয়ার পর দেশর রাস্তা-ঘাটে, ঘরে-বাইরে চলছে তুমুল আলোচনা। চলছে পুলিশের প্রতি ধিক্কার। চলছে সমালোচনা।