ক্যাটেগরিঃ মুক্তমঞ্চ

আমার পূর্বের লিখা পড়ে আপনার মনে হতে পারে আমি নারী বিরোধী কিন্তু তা সঠিক নয়।আমি নারীবাদী বিরোধী। যাই হউক এখন ঈদের আনন্দ নিয়ে কথা বলবো। ঈদ মানে আনন্দের দিন। কোমল মোতি শিশুরা রংবেরঙের জমা পড়ে বাসায় বাসায় যায়। ঈদ মানেই খুশি । বিশেষ করে শিশুদের খুশি দেখে মন ভরে উঠে । ঈদের আনন্দের কথা বলতে গেলে এর গল্প বলে শেষ করা যাবে না। কিন্তু সামাজিক কিছু বিষয় নিয়ে কথা আমাকে বলতেই হবে । এ সচেতনতা থেকে আমার আজকের লিখা ।

মা বোন এবং স্ত্রীর কিছু না বলা কথা ব্লগার ভাইদের জন্যঃ
ঈদের সকালে ঘুম থেকে উঠেই স্ত্রীকে বলুন ঈদ মুবারক । গোসল সেরে বাইরে এসছেন স্ত্রী আপনাকে সেমাই দিল গোপ গোপ করে সব সেমাই নিজেই শেষ করবেন না বধু কেউ এক চামুচ খাইয়ে দিন । বাবা মা সাথে থাকলে নামাজে যাবার আগে মায়ের কপালে চুমু দিন। আপনি সন্তানের বাবা হলে সন্তানকে সাথে করে নামায পড়তে যাবেন। এতে আপনার সন্তান আপনার সাংসারিক ধারা বহন করবে। নামায শেষে বাসায় এসে বিশ্রাম নিচ্ছেন এমন সময় মেহমান আসল। আপনার স্ত্রী’কে মেহেমান খেদমতে সহায়তা করুন। বিকেলে যখন এক সাথে বাইরে বের হয়েছেন তখন ওকে সুন্দর লাগছে বলে কমেন্ট করুন। দেখবেন ঈদের দিনেই আপনার এবং আপনার বউয়ের ভালবাসা বাড়বে। রাতে একসাথে বসে টিভিতে মজার মজার ঈদের অনুষ্ঠান দেখছেন সন্তানকে কোলে নিয়ে বসিয়ে রাতের খাবার খাইয়ে দিন এতে সন্তানের আপনার উপর ভালোবাসা আরও শক্ত হবে। এতে স্বামী হিসাবে নয় বাবা হিসাবে আপনার স্ত্রী তখন আপনাকে সম্মান ও আদর করবে।

এ কাজ গুলো অন্য সময়ও করতে পারেন লস করবেন না। মনে রাখবেন যদি স্ত্রী আপনাকে নির্যাতন না করেন। তাহলে বউকে এটেনশন দেওয়া আমার অভিধান মোতাবেক আপনার জন্য ফরজ।

আশা করি আনন্দের সহিত ঈদ পালন করবেন। ঈদের শুভেচ্ছা রইল। ঈদ মোবারক