ক্যাটেগরিঃ গ্লোবাল ভয়েসেস

মোহামেদ মোর্সিকে মিশরের নতুন প্রেসিডেন্ট ঘোষণা করার সঙ্গে সঙ্গে সেটা উদযাপনের জন্যে জনতা তাহরির স্কোয়ারে ভীড় জমিয়েছে। মিশরীয় বিপ্লবের উপকেন্দ্র এই তাহরির স্কোয়ার উল্লাস আর জয়গানে ভরে যায়। আকাশে আতশবাজী জ্বলে উঠলেও, উদযাপনের সেই সময় কলঙ্কজনক কিছু ঘটছে।

সাংবাদিক নাতাশা স্মিথ উদযাপনের জন্যে তাহরির স্কোয়ারে দিকে যাওয়ার সময় তিনি যে গণ যৌন লাঞ্ছনা সহ্য করেন তার সেই অগ্নিপরীক্ষার বর্ণনা দেন “দয়া করে খোদা, দয়া করে এটা বন্ধ কর।” শিরোনামের একটি পোস্টে:

শত শত আমার পুরুষ আমার অঙ্গগুলো আলাদা করে ফেলে আমাকে আশেপাশে ছুড়ে দেয়। তারা আমার স্তন আঁচড়ে আর চেপে ধরে এবং তাদের আঙ্গুল আমার (শরীরের) সম্ভাব্য প্রত্যেক স্থানে জোর করে প্রবেশ করিয়েছে। এতো এতো পুরুষ। যা আমি দেখতে পেয়েছি সেটা হলো লোলুপ সব মুখভঙ্গি, ক্ষুধার্ত সিংহের মুখে তাজা মাংসের মতো আমাকে এদিক ওদিক ছুড়ে দেয়ার সময় টিটকারী আর বিদ্রূপ করছে।

মহিলারা কেঁদে কঁদে আমাকে বলেছেন “এটা মিশর না! এটা ইসলাম না! দয়া করে, দয়া করে এটাকে মিশর ভাববেন না!” আমি তাকে আশ্বস্ত করে বলেছি আমি জানি এটা সেরকম কিছু নয় – যে মিশর ও তার সংস্কৃতি ও জনগণ, এবং যে সহজাত শান্তির সহনশীল ইসলাম কে আমি ভালবাসি। তবে আসলেই আমি প্রতিহিংসাপরায়ণ লোক নই এবং আমি পরিস্থিতির ভিতরটা দেখতে পারি। আমি যে জায়গাটিকে জানি এবং ভালবাসি এই নোংরা আচরণ তার প্রতিনিধিত্ব করে না।

….>বিস্তারিত