ক্যাটেগরিঃ বিডিনিউজ২৪ ডট কম

‘বেবো’ থেকে ‘বেগম’, কারিনা কাপুরের পাঁচ বছরের এই যাত্রা এক নতুন মোড় নিয়েছে ১৬ অক্টোবর। অভিনয় জীবনে সাফল্য পেয়েছেন অনেক আগেই, এবার ছিল ব্যক্তিগত জীবনের পালা। ২০০৭ সালে অভিনেতা সাইফ আলি খানের সঙ্গে এক সিনেমায় কাজ করতে গিয়ে পরিচয় এবং প্রণয়, বাকিটা এখন ইতিহাস। সারা বিশ্বকে এবং বিশেষ করে পুরো বলিউডবাসীকে নানা জল্পনা কল্পনার সুযোগ দিয়ে অবশেষে ১৬ অক্টোবর বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হলেন বলিউডের এই তারকা জুটি। তাদের এই বিয়ে নিয়ে ভক্তদের যেমন আগ্রহের কমতি ছিলো না, তেমনি মিডিয়ারও ছিল উপচে পড়া কৌতূহল। কাপুর খানদানের সঙ্গে পতৌদির নবাবদের মেলবন্ধন- সাইফিনার এই বিয়ে নিয়ে সবার আগ্রহের মূল কারণ, এই দুই পরিবারের পূর্বপুরুষদের বিয়ের দীর্ঘ ‘ফিল্মি’ ইতিহাস। সাইফিনার বিয়ে এবং তাদের অগ্রজদের বিয়ের ইতিহাস জানাচ্ছেন জেনিফার ডি প্যারিস।

সাইফ আলি খান এবং কারিনা কাপুর- এর মধ্যে বয়সের পার্থক্যটা দশ বছরের, কিন্তু বয়স কখনোই তাদের সম্পর্কে প্রভাব ফেলতে পারেনি। পতৌদি পরিবারের পুত্র সাইফ আলি খান, বলিউডে যিনি ‘ছোটে নবাব’ হিসেবেও পরিচিত, কারিনার সঙ্গে তার প্রথম পরিচয় ‘তাশান’ সিনেমায় কাজ করতে গিয়ে ২০০৭ সালে। তারপর দুজনের সম্পর্ক মোড় নিল প্রণয়ে। যদিও এর আগে বেবোর প্রেম চলছিলো অভিনেতা শাহীদ কাপুরের সঙ্গে, তবে সাইফকে পেয়ে তিনি জীবনের প্রকৃত অর্থ খুঁজে পেয়েছেন, এমনটাই ভাষ্য কারিনার। অন্যদিকে ৪২ বছর বয়সি সাইফ আলি খান ব্যক্তিগত জীবনে অনেকটা একাই ছিলেন ঐ সময়ে; আর তাই কারিনার আকর্ষণ এড়াতে পারেননি তিনি কোনোভাবেই। অবশেষে দীর্ঘ পাঁচ বছরের প্রেমের পর বিয়ের বন্ধনে আবদ্ধ হলেন এই তারকা জুটি।

….> বিস্তারিত