ক্যাটেগরিঃ গ্লোবাল ভয়েসেস

 

কালুশাহ বাওয়ালা সম্ভবত জাম্বিয়ার সবচেয়ে পরিচিত মুখের মধ্যে অন্যতম, কারণ ফুটবলের মাধ্যমে সে দীর্ঘ সময় ধরে দেশের সেবা করে আসছে। সে ৩৫ বছর ধরে নানা ভাবে দেশটির ফুটবল অঙ্গনে কাজ করে যাচ্ছে। তবে যখন ফেসবুকের বিষয়টি সামনে চলে আসে তখন বোঝা মুশকিল কোন নামের একাউন্ট সঠিক এবং কোনটি ভুয়া।

বর্তমানে কালুশাহ জাম্বিয়া ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের (ফাজ) এর সভাপতি। এটি এমন এক পদ যা তাকে আফ্রিকার ফুটবল সংস্থা (সিএএফ) এবং আন্তর্জাতিক ফুটবল সংস্থার (ফিফা) আলোচনা সভায় বসার সুযোগ করে দিয়েছে,।

একজন ফুটবল খেলোয়াড় হিসেবে কালুশাহ ১৯৮৮ সালে অলিম্পিক-এ খেলার যোগ্যতা লাভের সময় তারকা খচিত ইতালী ফুটবল দলকে ৪-০ গোলে পরাজিত করে এবং সে অনেক বছর ধরে ইউরোপের পেশাদার লীগে ফুটবল খেলে। সে অনেক ফুটবল ম্যাচে জাম্বিয়ার ফুটবল দলকে জেতাতে সাহায্য করেছে। হতাশাজনক বিষয় হচ্ছে জাম্বিয়া কখনো আঞ্চলিক বা আন্তর্জাতিক পর্যায়ে কোন প্রতিযোগিতায় শিরোপা জয়লাভ করতে সক্ষম হয়নি। তবে অনেক খেলায় তারা সেমিফাইনাল বা ফাইনাল খেলায় পরাজিত হয়েছে।
১৯৯৩ সালে কালুশা একটি বিমানে চড়তে ব্যর্থ হয়, উক্ত বিমানে ছিল দেশটির ২২ জন ফুটবল খেলোয়াড় এবং আটজন কর্মকর্তা। তারা বিশ্বকাপের চুড়ান্ত পর্বে উর্ত্তীণ হবার লক্ষ্যে একটি খেলায় অংশ নিতে সেনেগালের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করেছিল। যারা গ্যাবনের সমুদ্র উপকূলে বিমান দুর্ঘটনায় মারা যায়। এই বেদনাদায়ক ঘটনার পর সে আর কখনো জাতীয় দল থেকে নিজের মুখ ফিরিয়ে নেয়নি বরঞ্চ যদিও উৎসাহজনক নয় কিন্তু তার অংশগ্রহণ জাতীয় দলের অপরিহার্য অংশে পরিণত হয়।

সম্পূর্ণ পোস্ট পড়তে ভিজিট করুন গ্লোবালভয়েসেসঅনলাইন এর এই লিংক