ক্যাটেগরিঃ সামহোয়ারইন ব্লগ

 

গত ২৫ অক্টোবর ২০১১ দৈনিক আমার দেশ পত্রিকায় প্রকাশিত একটি প্রতিবদন বিশেষ ভাবে দৃষ্টি কাড়ে ব্লগারদের। প্রতিবেদনটিতে সত্তরোর্ধ্ব বৃদ্ধা নাসেরা বেগম, যিনি কলম দাদি নামে পরিচিত, ব্লগারদের দ্বারা প্রতারণার শিকার হয়েছেন বলে লেখা হয়। প্রতিবেদনটিতে লেখা হয়, কলম দাদিকে আর্থিক সাহায্যের ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে ঢাকার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে ১৪ লাখ টাকা তুলে হাতিয়ে নিয়েছে একদল ব্লগার ও অনলাইন অ্যাক্টিভিস্ট। এই প্রতিবেদনের প্রেক্ষিতে ব্লগারদের অভিযোগ, প্রতিবেদনটি অসত্য তথ্য দিচ্ছে অথবা প্রতিবেদনটি উদ্দেশ্যপ্রণোদিত হয়ে লেখা। এ প্রেক্ষিতে সামহোয়্যার ইন ব্লগে ব্লগার সবাক তার পোস্টে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন। ব্লগারদের সাথে কণ্ঠ মিলিয়ে ব্লগার সবাক অর্থ আত্মসাতের নিন্দা করেছেন, আমার দেশ পত্রিকায় প্রকাশিত প্রতিবেদনটিতে ব্লগারদের জড়িত থাকা ‍উল্লেখ করায় আমাদের পত্রিকার উদ্দেশ্য নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন এবং সম্ভাব্য করণীয় নিয়ে মত প্রকাশ করেছেন।

অনেক ব্লগারের মতে, কলম দাদিকে নিয়ে উদ্যোগটি ছিল জামাত-শিবির সমর্থকদের লাইমলাইটে আসার কৌশল। এ প্রসংগে ব্লগার সবাক বলেন,

বাংলাদেশের স্বাধীনতাযুদ্ধের সৈনিকদের নিয়ে স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে নানান ধরনের রাজনীতি, অপরাজনীতি, কুরাজনীতি হয়েছে। প্রত্যেকটি রাজনৈতিক দলই মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে ঝি কুত কুত খেলেছে। বিষয়টি একেবারেই নগ্ন হয়ে যায়, যখন স্বাধীনতা বিরোধীরাও মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে খেলাধুলা শুরু করে দেয়। জামাতপন্থী মুক্তিযোদ্ধা(!) সংগঠনের অনুষ্ঠানে আলী আমান নামের একজন মুক্তিযোদ্ধাকে লাথি মারার মতো কাজও জামায়াত শিবির কর্মীরা করেছে। একজন শহীদ মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী নাসেরা বেগমের প্রতিও নজর পড়েছিলো জামায়াত শিবির সমর্থকদের। নজর পড়ার পর সেটা নিয়ে তাদের ভাবটাও ছিলো অন্যরকম। সোনারবাংলা ব্লগে পোস্ট আসলো শিবির কর্মীরাই নাকি মুক্তিযুদ্ধের মহান চেতনা রক্ষা করছে! আরতো পোজ দিয়ে ছবি তোলাতুলির বিষয়টা ছিলোই।
মুক্তিযুদ্ধে শহীদের স্ত্রী এখন ফেরিওয়ালা!!!জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের প্রাপ্যটা আমরা এভাবে দিলাম!?

কলম দাদির জন্য জমাকৃত অর্থ আত্মসাতের পাশাপাশি আরেকটি ন্যাক্কারজনক ঘটনা হলো, তার মোবাইল নম্বর ব্যবহার করা হয়েছে কোন পর্ন সাইটে। ফলে কলম দাদিকে নানা প্রকার বিব্রতকর ফোন কল পেতে হয়েছে। ব্লগার সবাক বলছেন,

আজ পত্রিকার রিপোর্টে নাসেরা বেগমের মোবাইল নাম্বারটি একজন কলগার্লের নাম্বার হিসেবে পর্ন সাইটে দেয়ার ঘটনাটি পড়ে কিংকর্তব্যবিমূঢ় হয়ে একটি দীর্ঘশ্বাস ফেলেছি। কোন মানুষের পক্ষে এ কাজটি সম্ভব হতে পারে বলে বিশ্বাস হয়নি! যেহেতু টাকা নিয়ে তাপস চম্পট হয়েছে, সেহেতু এ কাজটিও সেই করেছে।

ব্লগারদের সবারই অভিযোগ হচ্ছে, ঘটনায় অর্থ আত্মসাতে যিনি মূলে আছেন, সেই তাপসকে কেউ ব্লগার হিসেবে জানেনা। ব্লগে এ উদ্যোগ নিয়ে বিভিন্ন সময় পোস্ট দিতে দেখা গিয়েছিল, ব্লগার অসামাজিক ০০৭০০৭ -কে। এ প্রসংগে ব্লগার সবাক তার পোস্টে লিখেছেন,

সার্বিকভাবে নাসেরা বেগমকে কেন্দ্র করে ১৪ লাখ টাকা আত্মসাতের ব্লগীয় দায়ভার অসামাজিক ০০৭০০৭ কেই নিতে হবে। কিন্তু উনি অর্থসংগ্রহের জন্য ব্লগে পোস্ট দিলেও (স্টিকি পোস্ট) পরবর্তীতে বলতে দেখেছি, “এটা কোন ব্লগীয় উদ্যোগ নয়।“ তবুও নিশ্চয় উনার দায়ভার আছে। এবং আজ উনি বেশ জোর গলায় বলেছেন “এর শেষ উনি দেখে নেবেন”। আশাকরি তিনি সফল হবেন। এবং এর পাশাপাশি সচেতন হবেন।

বিস্তারিত পোস্ট : ১৪ লাখ টাকা আত্মসাত এবং ব্লগারদের মাথার উপর নুন রেখে দৈনিক আমারদেশ এর বরই খাওয়া, ২৫ শে অক্টোবর, ২০১১ রাত ১১:৩৪