ক্যাটেগরিঃ ব্লগালোচনা

প্রিয় ব্লগার,

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম ব্লগ পোস্ট ও মন্তব্যে মননশীলতার ছাপ, মার্জিত প্রকাশ ভঙ্গিকে উৎসাহিত করে। এই প্রচেষ্টা কেবল ব্লগ টিমের নয়, বরং ব্লগারদেরও। পোস্ট দীর্ঘ হোক অথবা নাতিদীর্ঘ- পাঠকের কাছে পাঠযোগ্য হোক এটা পাঠক-ব্লগারদের যেমন প্রত্যাশা থাকে, পোস্টদাতা-ব্লগারও একই ভাবে তা প্রত্যাশা করবেন, এটাই স্বাভাবিক।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম ব্লগে কেবল নিয়মিত ব্লগাররাই পোস্ট পাঠ করেন না, বরং ব্লগার নন এমন পাঠকও রয়েছেন। ’ব্লগ হাইলাইটস’ ফিচার অনুসরণকারী এমন পাঠকের সংখ্যা প্রচুর। তাই পাঠকের সুবিধার্থে সকল ব্লগারদের নিম্নোক্ত বিষয়গুলোর প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করা যাচ্ছে –

১. পোস্টের শিরোনাম বিস্তারিত পোস্টের উদ্দেশ্য, বর্ণিত ঘটনা, মতামত ইত্যাদির সাথে সম্পর্কযুক্ত করুন। অতিদীর্ঘ শিরোনাম নয়, বরং সংক্ষেপে অর্থপূর্ণ শিরোনাম প্রদান করুন।

২. দীর্ঘ পোস্টে অবশ্যই অনুচ্ছেদ রাখুন, নয়তো দীর্ঘ লেখা পাঠকের কাছে ক্লান্তিকর মনে হতে পারে।

৩. ধারাবাহিক পোস্টে অবশ্যই ক্রম সংখ্যা উল্লেখ করুন। ধারাবাহিক পোস্টে পরবর্তী ও পূর্ববর্তী পোস্টের লিংক সংযোজন করুন, যেন পাঠক/ব্লগার সহজেই ধারাবাহিক আলোচনা অনুসরণে সমর্থ হন।

৪. পোস্টে কোন তথ্য, উদ্ধৃতি ব্যবহৃত হলে সুস্পষ্টভাবে সূত্র উল্লেখ করুন বা তথ্যপ্রাপ্তির কৃতজ্ঞতা স্বীকার করুন। তথ্যসূত্র হিসেবে গ্রন্থের নাম/পত্রিকার নাম, লেখক/প্রতিবেদকের নাম, প্রকাশের তারিখ, পৃষ্ঠা নম্বর এবং অনলাইন লিংক সংযুক্ত করুন। এতে করে আগ্রহী পাঠক পোস্টদাতার বক্তব্যের সত্যাসত্য যাচাই করতে সক্ষম হবেন। একই সাথে পোস্টদাতার উপর পাঠকের আস্থাশীলতাও তৈরী হয়।

৫. শুদ্ধ বানান চর্চাকে এই ব্লগে সব সময় উৎসাহিত করা হয়। অত্যন্ত দু:খজনক যে, ব্লগারদের অনেকেই বিস্তারিত পোস্টে বানান শুদ্ধকরণ নিয়ে অসচেতন থাকেন, এমনকি ভুল বানানের শিরোনাম সম্বলিত পোস্টও প্রায়শই প্রকাশের জন্য জমা হচ্ছে। এখন পর্যন্ত অসংখ্য পোস্টের শিরোনাম ও বিস্তারিত লেখার বানান সম্পাদিত করে প্রকাশ করা হয়েছে/হচ্ছে ব্লগ টিমের পক্ষ থেকে। ব্লগ টিমের এই সহযোগিতার উদ্দেশ্য, যেন ব্লগাররা বিষয়টি অনুধাবন করেন, এবং স্বপ্রণোদিতভাবে নিজ নিজ পোস্ট প্রকাশের জন্য প্রদানের পূর্বে যথাসম্ভব বানান নিরীক্ষণ করেন।

যেহেতু ব্লগারের সংখ্যা ক্রমাগত বাড়ছে, তাই পোস্ট/মন্তব্য সংখ্যাও বাড়ছে। ফলে এত সংখ্যক পোস্ট থেকে আলাদা আলাদাভাবে প্রতিটি পোস্টের/মন্তব্যের বানান শুদ্ধকরণ একটি সময় সাপেক্ষ ব্যপার হয়ে উঠছে। এতে করে পোস্ট প্রকাশ বিলম্বিতও হচ্ছে। তাই ব্লগাররা নিজ নিজ দায়িত্বে সচেতনভাবে যথাসম্ভব সঠিক বানানে পোস্ট প্রদান করবেন, এই আহবান করা হচ্ছে।

বানান ভুল হওয়া দোষনীয় নয়, তবে পোস্ট লেখার পর নিজ পোস্ট মনোযোগ সহকারে পোস্টদাতা ব্লগার পাঠ করবেন, এমন একটি চর্চা জরুরী। এতে লেখার প্রতি ও সর্বোপরি পাঠকের প্রতি লেখকের আন্তরিকতার প্রকাশ ঘটে। অবশ্য পারস্পারিক মিথস্ক্রিয়ার অংশ হিসেবে পাঠক-ব্লগাররাও পোস্টদাতার পোস্টে ভুল বানান চিহ্নিত করে বানান শুদ্ধকরণের অনুরোধ জানাতে পারেন।

হাতের কাছে অভিধান সব সময় না থাকলেও কোন বাংলা অভিধান সফট্ওয়্যার কিংবা বাংলা অভিধান ওয়েব সাইটগুলোকে ব্লগাররা অনুসরণ করতে পারেন। যেসকল নতুন ব্লগাররা এগুলো সম্পর্কে অবহিত নয়, তাদের জন্য অভিজ্ঞ ব্লগাররা নিজ থেকে পরামর্শ/সহায়িকা মূলক পোস্ট প্রদান করতে পারেন।

ইতিপূর্বে পোস্টে/মন্তব্যে বানান শুদ্ধ করণে সহজ পদ্ধতি হিসেবে ব্লগ টিম একটি সহায়িকা প্রদান করেছিল। উক্ত সহায়িকায় ব্রাউজারে (ফায়ারফক্স) বাংলা বানান শুদ্ধ করণে একটি ’এ্যাডঅন’
যুক্ত করার বিস্তারিত প্রক্রিয়া ছিল। পোস্টটির প্রতি ব্লগারদের পুনরায় দৃষ্টি প্রদানের আহবান করা হচ্ছে।

❗ ❗ ❗ ব্লগ সহায়িকা-৩: বাংলা ’বানান ভুল’ শুদ্ধিকরণ

উপরোক্ত সহায়িকা থেকে শতভাগ নির্ভুল বানান পাওয়া যাবে এ নিশ্চয়তা ব্লগ টিম দিতে অপারগ, তবে লক্ষণীয়ভাবে ভুলের পরিমাণ কমবে বলে আশা করা যায়।

‘পাঠযোগ্য’ পোস্ট প্রকাশে প্রত্যেক ব্লগার আন্তরিক হবেন, এবং সামান্য সময় ব্যয় করে নিজ পোস্ট প্রকাশের পূর্বে পুন:পাঠ করে প্রয়োজনীয় পোস্ট বিন্যাস সাধন করবেন এটাই প্রত্যাশা।

ধন্যবাদ।

ব্লগ টিম