ক্যাটেগরিঃ ব্লগ

নিজেদের অর্থে পদ্মা সেতু নির্মাণ করে দিতে একটি প্রস্তাব দিয়েছে চীনের একটি কোম্পানি যার জন্য তাদেরকে কোনো সুদ দিতে হবে না। অস্ট্রেলিয়াভিত্তিক ওই কোম্পানি গত সপ্তাহে ঢাকায় প্রস্তাবিত সেতু নিয়ে একটি প্রেজেন্টেশনে বলেছে, তিন বছরের মধ্যেই তারা এ সেতুর নির্মাণ কাজ শেষ করবে এবং তাতে ব্যয় হবে একই পরিমাণ অর্থ। বিশ্ব ব্যাংকসহ দাতা সংস্থাগুলো এই প্রকল্পে যে পরিমাণ অর্থ ঋণ দিতে চেয়েছিল তা দেবে ওই প্রতিষ্ঠান। বাকি ৩০ শতাংশ অর্থ বাংলাদেশ সরকার দেবে আগের পরিকল্পনা মতোই। এক্ষেত্রে বাংলাদেশ তার অর্থ দিয়ে অভ্যন্তরীণ বাজার থেকে সেতুর জন্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী কিনতে পারবে। অর্থাৎ তাতে আমাদের সেতুর জন্য ডলার দিয়ে বাইরে থেকে জিনিসপত্র আমদানি করতে হবে না। চাপ পড়বে না রিজার্ভে।

আজ রাতে বিডিনিউজে প্রকাশিত এক খবরে এ তথ্য জানানো হয়েছে। ওই খবরে বলা হয়েছে, আগের পরিকল্পনায় যেখানে সেতু নির্মাণের জন্য প্রয়োজনীয় সময় ধরা হয়েছিলো পাঁচ বছর সেখানে এরা তিন বছরেই তা শেষ করে দেবে। আর আগের নকশায় যেখানে সেতুতে চার লেন করার কথা হয়েছিলো সেখানে এই কোম্পানি একই পরিমাণ অর্থ ব্যয়ে ছয় লেনের সেতু করার প্রস্তাব দিয়েছে। ঋণ শোধের ক্ষেত্রে সেতু গাড়ি চলাচলের জন্য খুলে দেওয়ার পর ২০ বছরের মধ্যে তা শোধ করার সময় দিতে চেয়েছে এই কোম্পানি। কাজের মান যাচাইয়ের জন্য বাংলাদেশ স্বাধীন পর্যবেক্ষক দল নিয়োগ করতে পারে বলেও তারা প্রস্তাব দিয়েছে। তাহলে বছরে শূন্য দশমিক ৭৫ শতাংশ হার সুদে প্রতিশ্রুত ঋণ না দিয়ে বিশ্ব ব্যাংক কি বাংলাদেশের জন্য আশির্বাদ হয়ে দেখা দিয়েছে?