ক্যাটেগরিঃ নাগরিক আলাপ

 

তেল-গ্যাস অনুসন্ধানে বাংলাদেশের স্বপ্নযাত্রার সারথি হয়েছেন একদল তরুণ। দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের উচ্চ ডিগ্রিধারী মেধাবী এই তরুণেরা রাষ্ট্রীয় তেল-গ্যাস অনুসন্ধান কোম্পানি বাপেক্সের কর্মকর্তা। তাদের নিয়ে গড়ে উঠেছে বাপেক্সের ত্রিমাত্রিক ভূকম্পন জরিপ দল (থ্রি-ডি সাইসমিক সার্ভে টিম)। দলের সদস্যদের গড় বয়স ত্রিশের মতো। এদের মধ্যে অনেকে বিদেশি প্রতিষ্ঠানের বেশি বেতনের কাজ ছেড়েছেন, কেউ উপেক্ষা করেছেন সেই হাতছানি। তাদের ব্রত দেশের উন্নয়ন। আর দেশও তার ফল পেতে শুরু করেছে।

এই জরিপ দলের প্রধান (পার্টি চিফ) হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন মেহেরুল হোসেন। ১৯৯৭ সালে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূতত্ত্ব বিভাগ থেকে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি নেন। এরপর আন্তর্জাতিক সংস্থা আইওসিতে কাজ শুরু করেন। সেখানে তিনি চারটি ত্রিমাত্রিক ভূকম্পন জরিপে অংশ নেন। এরপর এসে যোগ দেন বাপেক্সে।

কিন্তু অধিকাংশ মানুষই যেখানে দেশি প্রতিষ্ঠান ছেড়ে আইওসিতে চাকরি নিতে আগ্রহী, সেখানে তিনি আইওসির চাকরি ছেড়ে বাপেক্সে এলেন কী কারণে। প্রথম আলোর এমন প্রশ্নের জবাবে মেহেরুল জানান, কয়েক বছর চাকরি করার পর তার বাবা তাকে বলেন, “বিদেশি কোম্পানির জন্য অনেক কাজ করেছ। এখন দেশের জন্য কিছু করো।” আর সে কারণেই বাপেক্সে যোগ দেওয়া।

মেহেরুলের বাবা মো. আবু বকর হাওলাদার ছিলেন একজন মুক্তিযোদ্ধা। বরিশালের কামারখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ছিলেন তিনি। “বাবার প্রজন্ম মুক্তিযুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করেছে। এই দেশের অর্থনৈতিক মুক্তি আনার জন্য কাজ করতে হবে তাঁদের প্রজন্মকে,” এভাবেই নিজের অবস্থান ব্যক্ত করেন মেহেরুল।

এই স্বপ্নবান তরুণকে দেখে অনেক-অনেক ভালো লেগেছে। বিষিয়ে যাওয়া অন্ধকার সময়ে যখন তরুণদের মধ্যে ব্যক্তিকেন্দ্রিকতা, নিজের ভালো থাকা ছাড়া আর কোনো চিন্তা নেই, নেই দেশের মঙ্গলচিন্তা-যখন অর্থ লুঠপাট আর টেন্ডারবাজির জন্য ছাত্র ও যুব রাজনীতি, দেশের সবচেয়ে ভালো বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাস করে- এদেশের কৃষক শ্রমিকের টাকায় পড়ে বিদেশে পাড়ি জমানোর হিড়িক সেখানে একজন তরুণ এভাবে ভাবছেন। দেশের কল্যাণের জন্য চালিয়ে যাচ্ছেন নিরন্তর সংগ্রাম। যেখানে বিদেশি কোম্পানি ছাড়া তেল-গ্যাস অনুসন্ধানের কথা ভাবা যেতো না সেখানে নিজেরাই করা যাচ্ছে এই অনুসন্ধান-একের পর এক বের হচ্ছে খনিজ উৎস। এই স্বপ্নবান তরুণদেরই দরকার। আমাদের মতো নপুংসক না ওদের মতো কয়েকজন দেশপ্রেমিককে দরকার যারা নিজেদের মেধা ও শিক্ষাকে কাজে লাগিয়ে মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে অর্জিত এদেশকে সমৃদ্ধ করতে পারবে। অন্যের মুখাপেক্ষী না রেখে বাংলাদেশকে করবে আত্মনির্ভরশীল। সালাম মেহেরুল।