ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

 

সরকারী কাজে বাঁধাদান ও সরকারী কর্মচারীকে ইচ্ছাকৃতভাবে আঘাত করে যখম করার মিথ্যে অভিযোগে মানবাধিকারকর্মী গনেশ রাজবংশীকে থানা হেফাজতে নির্যাতন করায় মানবাধিকার প্রতিষ্ঠান জাস্টিসমেকার্স বাংলাদেশ গভীর ভাবে উদ্বিগ্ন। জাস্টিসমেকার্স বাংলাদেশ এর প্রতিষ্ঠাতা মহাসচিব অ্যাভভোকেট শাহানূর ইসলাম সৈকত এক বিবৃতিতে অবিলম্বে রাজবংশী ভ্রাতাদের মুক্তির জোড় দাবী জানিয়েছেন। তাছাড়া, নির্যাতনের ঘটনায় জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের হস্তক্ষেপসহ বিচার বিভাগীয় তদন্তের মাধ্যমে নির্যাতনকারী পুলিশ অফিসারের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবী করেছেন।

ঘটনায় জানা যায়, গতকাল ২২ জানুয়ারী ২০১৩ ইং তারিখ বিকেল আনুমানিক ৫.২৫ মিনিটে মানিকগঞ্জ সদর থানাধীন বালিরটেক বাজারে অবস্থান করাকালীন কতিপয় পুলিশসদস্য গণেশ রাজবংশীকে অতর্কিতভাবে গ্রেফতারের চেষ্ঠা করে। সে সময় মি. রাজবংশী তাকে গ্রেফতারের কারণ জানতে চাইলে তারা এলোপাথাড়ি মারপিট করতে থাকে। সেসময় তার সাথে থাকে ছোটভাই নরেন রাজবংশী এগিয়ে আসলে তাকেও মারপিট করে গ্রেফতার করে হরিরামপুর, মানিকগঞ্জ থানায় নিয়ে যায়। থানা কাস্টডিতে রাতভর তাদের নির্যাতন করে আজ সকালে মানিকগঞ্জ সদর থানায় প্রেরণ করে। ইচ্ছাকৃতভাবে পুলিশের উপর আক্রমণ করে আঘাত করেছে মর্মে স্বীকারোক্তি আদায়ের উদ্দেশ্যে মানিকগঞ্জ সদর থানায় আজ সারাদিন রাজবংশী ভ্রাতৃদ্বয়কে দফায় দফায় নির্যাতন করে বেআইনী জনতাবদ্ধে গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিকে গ্রেফতারে বাঁধাদান ও কর্তব্যরত পুলিশ অফিসারকে যখম করার মিথ্যে অভিযোগে দণ্ডবিধির ১৪৩/২২৫(খ)/৩৩২ ধারায় মানিকগঞ্জ সদর থানার মামলা নং ৩৬/১৩ দায়ের করে বিকেলে ৭ দিনের রিম্যান্ড চেয়ে মানিকগঞ্জ জেলার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে উপস্থিত করে। বিজ্ঞ আদালত আগামীকাল ২৪ জানুয়ারী ২০১৩ ইং তারিখে রিম্যান্ড শুনানীর দিন ধার্য করে তাদের জেল হাজতে প্রেরণের নির্দেশনা প্রদান করেন।

এখানে বিশেষভাবে উল্লেখ্য যে, মি. গণেশের ছোট বোন অপহরণপূর্বক শ্লীলতাহানীর শিকার হলে তিনি সে বিষয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে একটি মামলা করেন, যা বর্তমানে মানিকগঞ্জ জেলার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিশেষ আদালতে বিচারাধীন আছে।মামলাটি উঠিয়ে নেওয়ার জন্য এলাকার কতিপয় রাজনৈতিক প্রভাবশালী ব্যক্তি দীর্ঘদিন যাবত বিভিন্নভাবে প্রলোভন দেখানোসহ চাপ প্রয়োগ করে আসছে। তাতে ব্যর্থ হয়ে বিভিন্নভাবে হুমকি প্রদান করে আসছে।

তারই ধারাবাহিকতায় গত ০৭/০৬/২০১২ ইং তারিখে সাদা পোষাকের পুলিশের সহযোগীতায় তাকে হত্যার উদ্দেশ্যে অপহরণ করে প্রচণ্ড নির্যাতন করে। সে বিষয়ে ঢাকাস্থ হাজারীবাগ থানায় একটি ফৌজদারী মামলা করলেও অজ্ঞাত কারনে পুলিশ কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি। বিষয়টি সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে ভিজিট করুন: তাছাড়া গত ২০ জানুয়ারী ২০১৩ ইং তারিখে কতিপয় সন্ত্রাসী মি. গণেশকে অপহরণ করে প্রচন্ড নির্যাতন করে। সে বিষয়ে ঢাকাস্থ নবাবগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করতে চাইলে অজ্ঞাত কারনে তা মামলা হিসেবে গ্রহণ না করে সাধারণ ডায়েরি হিসেবে নথিভুক্ত করেন। আদিবাসী মানবাধিকারকর্মীকে গ্রেফতার পূর্বক নির্যাতনের বিষয়টি সম্পর্কে অনলাইনে পড়তে ভিজিট করুন: