ক্যাটেগরিঃ আইন-শৃংখলা

 

গত ৬ তারিখে মিরপুর-১৩ নম্বরে সরকারি কর্মকর্তাদের আবাসিক এলাকা ন্যাম গার্ডেনের ৩ নম্বর ভবনের ৪০৩-বি নম্বর ফ্লাটে বসবাসরত জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলের যুগ্ম সচিব আহসান হাবিব ছেলে কর্তৃক গৃহকর্মীকে ধর্ষনপূর্বক ছাদ থেকে ফেলে দিয়ে হত্যা করার ঘটনায় এখনো কোনো সুরাহ হয়নি। হয়নি সঠিক আইন ও ধারায় নিয়মিত মামলা অথবা মূল আসামী গ্রেফতার। বরং মূল আসামীর বাবা জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলের যুগ্ম সচিব আহসান হাবিব কাফরুল থানায় বসে পুলিশের উর্ধতন কর্তৃপক্ষের সাথে চা চক্রে মিলিত হন। ধিক দেশের আইন! ধিক দেশের পুলিশ প্রশাসন!

ধর্ষণপূর্বক হত্যা ঘটনার সুনির্দিষ্ট অভিযোগ পাওয়ার পরও স্থানীয় থানা কিভাবে অপমৃর্ত্যু মামলা রেকর্ড করে? এদেশে কি বিচার পাওয়ায়র কোনো সম্ভাবনা নেই। তাহলে কি বিচারের বাণী নিভৃতে কেঁদে যাবে। জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের গোচরে কি ঘটনাটি আসেনি যে তারা টু শব্দটিও করছে না। নাকি মুক্তিযোদ্ধা লেবাসে সবকিছু ঢেকে গেছে?