ক্যাটেগরিঃ নাগরিক আলাপ

 

আজ হরতাল, কাল অফিস থেকে বাসায় ফেরার পথে ভাবলাম কিছু সবজি কিনে নিই ।
“পুঁইশাক কত ভাই ?”
– “একদাম তিরিশ টেকা আঁটি!”
শুনে টাশকি খেলাম ! চার/পাঁচটা লতা লটপট করছে…
বললাম, “এত দাম কেন সবকিছুর? “
-“কি যে কন ! কাইল হরতাল না ?”
ওহ , তাই তো! কিনলাম ! আরো কিছু শাকসবজি কিনলাম। …টাকা ভাংতি করতে করতে দোকানী বলল,
“পাঁচশ টেকার নিচে সবজি কিন্যা মজা নাই !”
কথাটা শুনে নিজের অক্ষমতার জন্য একটু লজ্জা পেলাম কি !?
তাড়াতাড়ি সরে এলাম… ভাবলাম আর কোনদিন বাজারে আসবো না !

বাড়ি ফেরার পথে অফিস গাড়ির ড্রাইভার বলছে
-“ কাইল আসুম না ! “
-“কেন ?”
-“হরতাল না?”
ওহ ! তাই তো !

সকালে উঠে অফিস যাবো ,পাবলিক বাসে ঝুলাটা নিরাপদ মনে হল না! অনেকগুলো রিকশাওয়ালা কে জিজ্ঞেস করলাম মতিঝিল যাবে কিনা ! তাদের উত্তর “ যামু না!”
এক রিকশাওয়ালার দয়া হল, বললো “ যামু , দুইশ টেকা লাগবো !’
-“দুইশ !! মোহাম্মদপুর থেকে মতিঝিল দুইশ !!?? ‘
-“ হ ! হরতালে ভাড়া একটু বেশিই ।‘ নির্বিকার জবাব !
শেষমেশ একশ বিশ টাকায় একজন রাজি হলো। রিকশায় যেতে যেতে ভাবছিলাম, আমাদের ভবিষ্যত কী! রিকশাওয়ালার কথায় চমক ভাঙল।
“আপনাদের আর চিন্তা কি ! সরকারি চাকরি করেন, বছর বছর বেতন বাড়ে ! জিনিসপত্রের যা দাম, আমাগো তো সংসারই চলে না !”
রিকশাওয়ালার শেষের কথাগুলো তার টিং টিং বেলের শব্দে প্রায় ঢাকা পড়ে গেল ! আমিও আর কথা বাড়ালাম না ! বললাম “ হুম” ! ভাবছিলাম , আমারো কি সংসার চলে ?

যা বলছিলাম , আজ হরতাল , একটু পরই শেষ হবে হরতাল, দুই দলই জনগণকে অভিনন্দিত করবে ! একদল হরতাল সফল করার জন্য , আরেক দল হরতাল বর্জন করার জন্য !আজ আমি অভিনন্দনে সিক্ত হতে হতে বাড়ি যাবো !