ক্যাটেগরিঃ ফিচার পোস্ট আর্কাইভ, রাজনীতি

 

ইদানিং বাংলাদেশের সংবিধান ও সংবিধান সংশোধন নিয়ে অনেক আলাপ আলোচনা হচ্ছে। এক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশী আলোচিত হচ্ছে সংবিধানে ‘বিসমিল্লাহ্’ ও ‘রাষ্ট্র ধর্ম ইসলাম’ সংবিধানে থাকবে কি থাকবে না। কিন্তু সংবিধান সংশোধনের জন্য আরও অনেক বেশী গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি বিষয় আছে যা নিয়ে আরও বেশী আলোচনা হওয়া প্রয়োজন যেমন- সংবিধানের ৭০ অনুচ্ছেদ, রাষ্ট্রপতি ও প্রধান মন্ত্রীর ক্ষমতার ব্যালেন্স সুসংহত করা, রাষ্ট্র পরিচালনায় প্রধান মন্ত্রীর সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষমতা একভাবে প্রধান মন্ত্রীর উপর থাকবে নাকি মন্ত্রী পরিষদের উপর থাকবে, রাষ্ট্রের বিভ্ন্নি প্রতিষ্ঠানের এবং প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহীদের কিভাবে জাতীয় সংসদের কাছে জবাবদিহিতার আওতায় আনা যায় ইত্যাদি।

‘বিসমিল্লাহ্’ ও ‘রাষ্ট্র ধর্ম ইসলাম’ এ’দুটো বিষয় সংবিধানে থাকলে কিংবা না থাকলে সাধারণ মানুষের কিছু আসে যায় না এবং রাষ্ট্র পরিচালনার ক্ষেত্রেও এ’দুটো বিষয় এ পর্যন্ত কোন প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি করেছে বলে আমার মনে হয় না। আসলে সংবিধান পড়ে কেউ রাষ্ট্র পরিচালনা করেন না, ক্ষমতাবানেরা যখন নিজেদের স্বার্থ সিদ্ধির জন্য কোন পদক্ষেপ নিতে জনগণকে ভয় পান তখন তারা সংবিধান পড়ে দেখেন যে সংবিধানের কোন অনুচ্ছেদের ফাকফোকর দিয়ে তাদের স্বার্থ সিদ্ধি করা যায়। আমাদের ক্ষমতাবান রাষ্ট্র নায়ক নেতা নেত্রী এবং ইতিপূর্বের ক্ষমতাবান রাষ্ট্র নায়ক নেতা নেত্রীর ও ভবিষ্যতের রাষ্ট্র নায়ক নেতা নেত্রীর এই মানসিকতার পরিবর্তন করতে হবে। তা না হলে সংবিধান সংশোধন করে যত উন্নতমানের সংবিধান রচনাই করেন না কেন দেশের সাধারণ মানুষের মঙ্গলের জন্য তা খুব একটা কাজে লাগবে না।

***
ফিচার ছবি: [১: সাপ্তাহিক],[২: প্রবাসী বার্তা ডট কম],[৩: আমাদের ইতালী]